বিশেষ প্রতিবেদক:
মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়ার ফকিরজুম পাড়া থেকে সেকান্দার (৫৫) ও তার পুত্র আকতার হোসেনকে অপহরণ করেছে সন্ত্রাসীরা। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় সেকান্দারকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। সকাল ৯টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে তাদের অপহরণ করা হয়। তবে দুপুর ১২টা পযর্ন্ত তার পুত্র আকতার উদ্ধার করা যায়নি। নোনাছড়ির জিয়া বাহিনী ও কালারমারছড়া জিয়া বাহিনীর লোকজন এই ঘটনার সাথে জড়িত বলে অপহৃতদের পরিবারের অভিযোগ।

স্থানীয়রা জানান, ১৫/২০ জনের একদল অস্ত্রধারী এসে সেকান্দার ও তার পুত্র আকতারকে তাদের বাড়ির অদূরে রাস্তা থেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। অপহরণ করে তাদেরকে নোনাছড়ির পূর্বে পাহাড়ি আস্তানায় নিয়ে যায়। সেখানে তাদেরকে দা’ দিয়ে নির্মমভাবে কোপানো হয়। এক পর্যায়ে গুরুতর আহত অবস্থায় সেকান্দারকে ফেলে দেয় সন্ত্রাসীরা। সেখান থেকে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। তবে অপহরণের চারঘন্টা পরও আকতারকে উদ্ধার করা যায়নি।

কালারমারছড়ার চেয়ারম্যানের তারেক শরীফের সাথে সম্পর্ক রাখার অভিযোগ তুলে সন্ত্রাসীরা তাদেরকে অপহরণ করে বলে জানান তাদের পরিবার।

এ ব্যাপারে কালারমারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই শাহাজাহান বলেন, ‘সেকান্দার নামে এক ব্যক্তিকে অপহরণের অভিযোগ পেয়ে আমরা পাহাড়ে অভিযানে যাই। সেখান থেকে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। কিন্তু কে বা কারা অপহরণ করেছে তা জানা যায়নি। তবে আমার সন্দেহ হচ্ছে ঘটনাটা পারিবারিক। কিন্তু প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে অপহরণ বলে প্রচারণ করা হয়েছে। সেকান্দারের পুত্র আকতার অপহরণ হয়নি। এই অভিযোগ মিথ্যা।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •