সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ হতে চান নাসরিন সিদ্দিকা লিনা

বার্তা পরিবেশক:
পারিবারিকভাবেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনীতির আদর্শে বেড়ে উঠেছেন আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য ও বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবি নাসরিন সিদ্দিকা লিনা। আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে নিজেকে গড়ে তুলেছেন তিলে তিলে। ত্যাগ, শ্রম ও মেধা দিয়ে তৈরী করেছেন নিজের অবস্থান। কক্সবাজারের এই কৃতি সন্তান এবার সংরক্ষিত নারী আসন থেকে এমপি হয়ে সংসদে প্রতিনিধিত্ব করতে চান।
এবারের সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পক্ষে একঝাঁক নবীন ও যুব আইনজীবীদের নিয়ে কক্সবাজার এর চারটি আসনেই প্রচারণা চালিয়েছেন তিনি। বিশেষ করে সরাসরি নির্বাচনে সুযোগ পাওয়া নারী প্রার্থীকে বিজয়ী করতে প্রত্যন্ত অঞ্চলে ঘুরে ঘুরে অন্য সকলের সাথে নৌকার পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছিলেন নাসরিন সিদ্দিকা লিনাও। তিনি দায়িত্ব পালন করেছেন আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা ও আইন সহায়তা কমিটিতে ।এছাড়াও বিভিন্ন রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছেন এবং ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
এডভোকেট লিনা ঢাকার আইন অঙ্গনে অত্যন্ত জনপ্রিয় মুখ। ২০০৪ সালে তিনি ঢাকায় জুনিয়র হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেছেন বাংলাদেশ আওয়াীলীগের তৎকালীন আইন বিষয়ক সম্পাাদক, বর্তমান প্রেসিডিয?াম মেম্বার এড. সাহারা খাতুনের অধীনে। কক্সবাজার এ ছাত্রলীগ এর মাধ্যমে সাংগঠনিকভাবে রাজনীতি শুরু করলেও পেশাগত ও রাজনৈতিক জীবনের হাতেখড়ি এড. সাহারা খাতুন এর হাতে।এখনও তাঁর অধীনেই কাজ করছেন। বিগত দীর্ঘ সময় ধরে দলীয় নেতাকর্মীদের হয়ে তিনি মামলা লড়েছেন বিনা পারিশ্রমিকে। তাঁর করা কয়েকটি মামলা আলোড়নও তুলেছে দেশব্যাপী। যে রীটের প্রেক্ষিতে দেশের সর্বোচ্চ আদালত লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বক্তব্য প্রচারে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে, সেই রীটের পিটিশনার ছিলেন নাসরিন সিদ্দিকা লিনা। নিকট অতীতেও মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে বঙ্গবন্ধু এবং মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে কোন বিষয় ছিলনা। তখন জামায়াত-শিবির এর রাজনৈতিক আদর্শ মাদ্রাসা গুলোতে প্রচার করতো বলে অভিযোগ রয়েছে। এ অবস্থায় ২০১৪ সালে মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে বঙ্গবন্ধু এবং মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে বিষয় রাখার নির্দেশনা চেয়ে আদালতে রীট করেন লিনা। পরে আওয়ামী লীগ সরকার মাদ্রাসার সিলেবাসে ওই বিষয় অন্তর্ভুক্ত করে।
নাসরিন সিদ্দিকা লিনা ঢাকার আইন অঙ্গনে এবং ঢাকার আইনজীবিদের রাজনীতিতে ব্যাপক জনপ্রিয়।সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবী সমিতির কার্যনির্বাহী পরিষদ (২০১৬Í-১৭) এর আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্যানেলের একমাত্র মহিলা যিনি সদস্য নির্বাচিত হন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে কক্সবাজারের প্রত্যন্ত অঞ্চলে তিনি নৌকার প্রচারনার জন্য ঘুরে বেড়িয়েছেন। মানুষের দ্বারে-দ্বারে গিয়ে নৌকার পক্ষে ভোট প্রার্থনা করেছেন।
কক্সবাজার জেলা শহরের জামায়াত-শিবির অধ্যুষিত এলাকা হাশেমিয়া মাদ্রাসার পাশেই তার পৈত্রিক নিবাস। তাঁর পিতা এডভোকেট ছৈয়দুল হক কক্সবাজারের আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে একজন উজ্জ¦ল নক্ষত্র। তিনি সর্বমহলে সুপরিচিত। ছোট বেলায় এডভোকেট ছৈয়দুল হক তার কন্যা লিনাকে বলতেন, ‘নৌকা হলো স্বাধীনতার প্রতীক। বঙ্গবন্ধুর প্রতীক।’ সেই স্মৃতিচারন করে নাসরিন সিদ্দিকা লিনা বলেন, ‘আমার বাবা বঙ্গবন্ধুর নেতৃৃত্বে রাজনীতি করেছেন। আমি রাজনীতি করছি বঙ্গবন্ধুর কন্যা দেশরতœ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। আমি গর্ববোধ করি নিজেকে আওয়ামী লীগের এবং বঙ্গবন্ধু কণ্যার একজন বিশ্বস্ত কর্মী হিসেবে পরিচয় দিতে।’ নাসরিন সিদ্দিকা লিনা সাবেক ছাত্রলীগ নেতা , ঢাকা আইনজীবি সমিতির সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান লিখনের সহধর্মিনী।
এবারের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন লিনা। কিন্তু মনোনয়ন বঞ্চিত হয়েও তিনি আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষেই দিনরাত কাজ করেছেন।
এবার সংরক্ষিত নারী আসনে সাংসদ হবার মনোবাসনার কথা জানিয়েছেন লিনা। তিনি বলেন, ‘আমি সংরক্ষিত আসনের জন্য মনোনয়ন চাই। আমি মনে করি সংসদে যাওয়ার জন্য নিজেকে আমি তৈরী করতে পেরেছি। এই দায়িত্ব পালন করার মতো যোগ্যতা আমার আছে। আমি দলের কাছে কোন দিন কিছু চাইনি। কক্সবাজার কলেজে অধ্যয়নকালীন সময়ে ছাত্র রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হওয়ার পর থেকেই দলের জন্য কাজ করে এসেছি। অতীতেও আমি দলের জন্য নিবেদিতপ্রাণ ছিলাম, ভবিষ্যতেও থাকবো। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি আমার ওপর আস্থা রাখেন তাহলে অবশ্যই আমি তার আস্থার মর্যাদা রাখব।জনগনের সেবার জন্য আমি এবার সংসদে প্রতিনিধিত্ব করতে চাই।’
নিজের রাজনৈতিক দর্শন নিয়ে লিনা বলেন, ‘আমি পারিবারিকভাবেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনীতির আদর্শে বেড়ে উঠেছি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ-দর্শন তাঁর রাজনৈতিক জীবনে ছোটবেলা থেকেই প্রভাবিত করেছে। রাজনীতিতে আমি হঠাৎ সক্রিয় নই। বহু বছর ধেরে আওয়ামী লীগ রাজনীতির মাঠে আছি। এছাড়াও নানারকম সামাজিক কার্যক্রমে আমি জড়িত।’কক্সবাজার এ আমার প্রয়োজন আছে, রাজনীতি আমার দেশপ্রেম এর সাধনা। আমি বঙ্গবন্ধু কণ্যার মতো করে দেশকে ও মানুষকে ভালোবাসতে চাই।
তিনি বলেন, ‘যার মুখে আছে জয় বাংলা, তাকে আমি ভাই মনে করি। আমি আজীবন কক্সবাজারের মানুষের জন্য কাজ করতে চাই।’
একাদশ জাতীয় সংসদ অধিবেশন বসছে ৩০ জানুয়ারি। আর সংরক্ষিত ৫০ নারী আসনের সদস্য (এমপি) পাবে জাতীয় সংসদ। খুব শিগগিরই এ নারী আসনের নির্বাচন এবং মনোনয়ন প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে বলে জানা গেছে।
আওয়ামী লীগের একটি সূত্র জানিয়েছে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রাপ্ত আসন অনুযায়ী সংরক্ষিত ৫০টি আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগ পাবে ৪৩টি। নতুন নেতৃত্ব তৈরি এবং সুযোগ দেওয়ার জন্য এবার সংরক্ষিত আসনে নতুন মুখ প্রাধান্য পাবে। নবীন-প্রবীণের সমন্বয়ে সংরক্ষিত আসনগুলো পূরণ করা হবে। ফলে দশম সংসদে যারা এমপি রয়েছেন তাদের অধিকাংশ একাদশ সংসদে বাদ পড়তে পারেন। সরাসরি দলের রাজপথের নেতাকর্মীর পাশাপাশি বিভিন্ন শ্রেণীয় পেশার সঙ্গে যুক্ত থেকে যারা দলের জন্য অবদান রেখে যাচ্ছেন তাদের মধ্যে থেকেও সংরক্ষিত আসনের এমপি করার সম্ভাবনা রয়েছে। এদের মধ্যে দলের অঙ্গ-সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন বিশেষ করে ছাত্রলীগের সাবেক নেত্রী, মহিলা আওয়ামী লীগ ও যুব মহিলা লীগের নেত্রীরাও থাকবেন। এ সংগঠনগুলোর কেন্দ্রীয় ও জেলা পর্যায়ের নেত্রীরা মনোনয়নের জন্য জোর তৎপরতা শুরু করেছেন। এদের পাশাপাশি সামাজিক, সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডের সঙ্গে যুক্ত নারী নেত্রীরাও তৎপরতায় রয়েছেন।

সর্বশেষ সংবাদ

ভারুয়াখালীতে স্কুলছাত্রকে অপহরণের চেষ্টা  ‘ভাই গ্রুপের’

আজ আন্তর্জা‌তিক মাতৃভাষা দিবস

মুজিবুর রহমান ও এমপি জাফরের দোয়া নিলেন ফজলুল করিম সাঈদী

মাতৃভাষার প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছে রাখাইনদের নতুন প্রজন্ম

শুদ্ধ সংস্কৃতির চর্চার মধ্য দিয়ে অপশক্তিকে রুখতে হবে- মেয়র মুজিব

একুশে ফেব্রুয়ারি : প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা

টেকনাফে সাড়ে ১৫ লক্ষ টাকার স্বর্ণালংকার উদ্ধার

চকরিয়ায় শিশু ও নারী নির্যাতন মামলার ৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার

২০ হাজার ইয়াবাসহ দুইজন আটক

এডভোকেট রানা দাশগুপ্তের সাথে কক্সবাজার জেলা নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়

ইসলামে মাতৃভাষার গুরুত্ব ও তাৎপর্য

ঈদগাঁওতে পুজা কমিটির সম্মেলন নিয়ে সংঘাতের আশংকা

কক্সবাজার সিটি কলেজে শিক্ষকদের জন্য আইসিটি প্রশিক্ষণ শুরু

উখিয়ায় হাতির আক্রমণে রোহিঙ্গা যুবকের মৃত্যু

এস আলম গ্রুপের ৩ হাজার ১৭০ কোটি টাকার কর মওকুফ

মালয়েশিয়ায় ভবনে আগুন : বাংলাদেশিসহ নিহত ৬

মহেশখালীতে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে মোস্তফা আনোয়ার

চকরিয়ায় ইয়াবাসহ দুই ব্যবসায়ী আটক

চকরিয়ার চেয়ারম্যান পদে ২ জনসহ ৫ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল

কোর্টরুমে সাংবাদিকদের প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করতে হবে : প্রধান বিচারপতি