পেকুয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক্সরে মেশিন ১৪ বছর ধরে বাক্সবন্দী

মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, পেকুয়া:

পেকুয়া উপজেলা সরকারী হাসপাতালে গত ১৪ বছর ধরে এক্সরে মেশিন বাক্সবন্ধী অবস্থায় রয়েছে। ফলে পেকুয়া-কুতুবদিয়া উপকূলের রোগীরা এক্সরে সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এছাড়াও এক্সরে মূল্যবান এক্সরে মেশিনটি বাক্সবন্দি অবস্থাায় পড়ে থাকার কারণে তা বর্তমানে অচল হয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, বিগত ২০০৪ সালে আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থা ইউনিসেফ পেকুয়া সরকারী হাসপাতালে এক্সরে মেশিনটি অনুদান প্রদান করেছিল। বিগত ১৪ বছরে একবারও এ এক্সরে মেশিনটির সুবিধা নিতে পারেনি পেকুয়া-কুতুবদিয়ার রোগীরা।

পেকুয়া সরকারী হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ডাক্তার মুজিবুর রহমান জানান, একজন টেকনিশিয়ানের অভাবে ওই এক্সরে মেশিনটি চালু করা সম্ভব হয়নি। সরকারী হাসপাতালে এক্সরে মেশিন বাক্সবন্ধি থাকায় এখানকার দরিদ্র রোগীরা সেবা পাচ্ছেনা। রেডিওগ্রাফার না থাকায় ১৪ বছর ধরে এক্সরে যন্ত্রটিকে রোগীদের সেবায় ব্যবহার করা যায়নি। একজন রেডিওগ্রাফার পদায়নের জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরে বার বার পত্র পাঠানো হয়। কিন্তু মন্ত্রণালয় থেকে এখনও পর্যন্ত কোন ধরনের আশার বাণী পাওয়া যায়নি।

হাসপাতালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, এক্সরে যন্ত্রের কক্ষটি তালাবদ্ধ। রোগীদের কাউকে এক্সরে করাতে হলে ছুটতে হচ্ছে ২০ কিলোমিটার দূরের চকরিয়ায়। আশেপাশে মানসম্মত বেসরকারি কোনো রোগ নির্ণয়কেন্দ্র নেই।

পেকুয়া উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের বাইন্যা ঘোনা গ্রামের বাসিন্দা মো: তারেক বলেন, উপজেলা হাসপাতালে এখন পর্যাপ্ত ভালো চিকৎসক পাচ্ছি আমরা। সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা থাকলেও আগত রোগীদের এক্সরে প্রয়োজন হলে হাসপাতাল থেকে করানোর কোন সুযোগ নেই। যেতে হয় চকরিয়ায় বা বেসরকারী ক্লিনিকে। একজন টেকনিশিয়ানের অভাবে এমন দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে উপকূলীয় উপজেলার দরিদ্রসাধারণ মানুষকে।

পেকুয়া হাসপাতাল সূত্র জানায়, ১৯৯৬ সালে ২০ শয্যার পেকুয়া উপজেলা হাসপাতালটি প্রতিষ্ঠিত হয়। ওই সময় হাসপাতালটি উন্নয়ন খাত থেকে পরিচালিত হতো। ২০০৫ সালে ৩১ শয্যায় রূপান্তরিত হাসপাতালটি ২০০৮ সালের এপ্রিলে সরকার রাজস্ব খাতে স্থানান্তরিত করে। আগের চেয়ে চিকিৎসার মান ভালো হলেও এক্সরে যন্ত্র চালু না থাকায় রোগীদের দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে।

টেকনিশিয়ান না থাকায় ব্যবহৃত না হওয়া যন্ত্রটি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে হাসপাতালের টিএইচও ডা: মো: ছাবের বলেন, গত কয়েকটি মাসিক সমন্বয় সভায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। কার্যবিবরণীসহ আবেদন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হলেও এখনো সাড়া পাওয়া যায়নি।

cbn
কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

কক্সবাজার কলেজ বাংলা বিভাগের শিক্ষা সফর : ব্যক্তিগত অনুভূতি

কক্সবাজারে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নতুন সভাকক্ষ উদ্বোধন

যুবসমাজের আনন্দায়োজন: কিছু ভাবনা , কিছু কথা…

সর্বক্ষেত্রে আল্লাহর নির্দেশ মেনে চলার নাম ইবাদত

উখিয়ায় উপজেলা নির্বাচনী হাওয়া : মাঠে বীর মুক্তিযোদ্ধা জাফর আলম চৌধুরী

চাকরি প্রত্যাশিদের তালিকা তৈরি কার্যক্রমের উদ্বোধন করল ‘জাগো উখিয়া’

শহীদ জিয়ার জন্মবার্ষিকীতে সুবিধাবঞ্চিত ও দুস্থদের পাশে চ.বি ছাত্রদল

মালয়েশিয়া প্রবাসী যুবককে মুঠোফোনে হুমকির অভিযোগ

দূর্গম পাহাড়ে স্বেচ্ছাশ্রমে নির্মিত হলো ১০ কি:মি: রাস্তা

পেকুয়ায় ইমামকে কুপিয়ে আহত

উখিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ জামিনে মুক্ত

মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন’র পিএইচডি ডিগ্রী লাভ

কক্সবাজার বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নতুন নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল কাদের গণি

শেখ হাসিনার বদান্যতায় মাথা গোজার ঠাঁই পেল গৃহহীন ১২৬ পরিবার

বিশ্বের সর্বাধিক হতদরিদ্র মানুষের বাস ভারতে

সবচেয়ে ‘কিউট’ কুকুরের মৃত্যু

চট্টগ্রামে ইয়াবা নিয়ে রোহিঙ্গা দম্পতিসহ গ্রেপ্তার ৪

মাদকবিরোধী অভিযানের সঙ্গে সমাজে ফেরার সুযোগও দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

টেকনাফে গ্রেপ্তার মাদকের আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

এনজিওতে স্থানীয়দের ছাঁটাই উদ্বেগের