ক্যাপশন: লোহাগাড়ার চরম্বায় সেচের পানির পাম্প নষ্ট।

লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি:

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার চরম্বা ইউনিয়নের পদ্মাশিখীল দক্ষিণ হাঙ্গর চরম্বা এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এক সমশু মিয়ার মালিকানাধীন আমন ধানের চাষাবাদের জন্য চরম্বা এলাকায় হাঙ্গর খালে নির্মিত সেচের পানির পাম্প ভাংচুর চালিয়েছে প্রতিপক্ষরা।

এ ঘটনায় নাছির মুহাম্মদ পাড়া এলাকার মৃত আজিজুর রহমানের পুত্র ক্ষতিগ্রস্থ সমশু মিয়া বাদী হয়ে ওই এলাকার মৃত আবদুল মাবুদের পুত্র মুহাম্মদ সরওয়ার (৩০) কে বিবাদী করে লোহাগাড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ সুত্রে প্রকাশ, দীর্ঘদিন ধরে সমশু মিয়ার সাথে সরওয়ারের জায়গা-জমি নিয়া বিরোধ চলে আসছিল। বিবাদীর কাছ থেকে চাষাবাদ বাবদ ১০ হাজার টাকা পাওয়া আছে।

স্থানীয় কৃষক আবুল কাশেম বলেন, জমিতে পানি সেচের পাম্প ভেঙ্গে দেওয়ায় তারা এখন হতাশায় ভোগছেন। পানির অভাবে জমিতে ধানের বিচানা শুকিয়ে যাচ্ছে।

সেচের পানির পাম্প নষ্ট হওয়ায় কৃষি জমি হুমকির মুখে। কৃষকের ক্ষতিহবেলাখ লাখ টাকা। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। গত ৩ জানুয়ারী রাতের অন্ধকারে সরওয়ারের নেতৃত্বে একটি সন্ত্রাসী দলবল নিয়ে পুর্ব বিরোধের জের ধরে হাঙ্গরখালে পানি সেচের মোটরটি ভাংচুর করে পালিয়ে যায় । এতে তার ২ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলেও অভিযোগে উল্লেখ।

এ ব্যাপারে ক্ষতিগ্রস্থ সমশু মিয়া বলেন, সরওয়ারের সাথে দীর্ঘদিন ধরে জায়গা-জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। সরওয়ার সন্ত্রাসী দলবল নিয়ে রাতের অন্ধকারে আমার পানি সেচের মোটরটি ভাংচুর করে। তিনি আরো বলেন, সরওয়ার কামাল এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। তার সাথে কেউ কোন প্রকার বিরোধ করতে চাই না। তিনি সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু বিচারের জোর দাবী জানান। লোহাগাড়া থানার এসআই মুজিবুর রহমান জানান, অভিযোগ হাতে পেয়েছি। প্রয়োজনীয় তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলেও তিনি জানান।

অন্যদিকে, অভিযুক্ত সরওয়ার বলেন, তিনি এ ঘটনা সম্পর্কে কিছুই জানেন না। ঘটনাটি সম্পূর্ন মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন বলে দাবী করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •