প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
বিপ্লবী কথাশিল্পী সত্যেন সেনের সৃষ্টি ও দর্শন বাংলা সাহিত্যের একটি নতুন মাত্রা। তাঁর সৃষ্টিকর্ম মূলত সংগ্রামী ও শোষিত মানুষকে কেন্দ্র করে। তাঁর সাহিত্যকর্মের মৌলিক দর্শন হলো শোষণ-বৈষম্যের অবসান এবং সাম্যবাদী সমাজ প্রতিষ্ঠার চেতনা নির্মাণ। আর এই লক্ষ্যকে সামনে রেখে তিনি আমৃত্যু পথ চলেছেন। গড়ে তুলেছেন মেহনতি মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলন। তুলে এনেছেন ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের জীবন্ত লড়াই-সংগ্রামের মানুষগুলোকে। তাঁদের জীবন-সংগ্রামকে ইতিহাসের পাতায় সাহিত্যিক রূপ দিয়ে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। যাকে আমরা বলি রাজনৈতিক সাহিত্য। সত্যেন সেন সাহিত্য সৃষ্টি করেছিলেন সাহিত্যিকের খাতায় নাম লিখানোর জন্য নয়, মানুষের সংগ্রাম ও সমাজ-প্রগতির সংগ্রামকে শানিত করে তোলার জন্য।

৫ জানুয়ারি সন্ধ্যা ৬টায় কক্সবাজার পৌরসভা মিলনায়তনে সত্যেন সেন এর ৩৮তম প্রয়াণদিবসে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

সত্যেন সেন শিল্পীগোষ্ঠী কক্সবাজার জেলা শাখার সভাপতি খোরশেদ আলমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মনির মোবারকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, সঞ্জয় পাল, সুমন পাল, তৌফিকুল ইসলাম, সচিব কর্মকার তিলক, তনয় দাশ, রাকিবুল ইসলাম, সুমন দে, মো. শামীম প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •