মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু, নাইক্ষ্যংছড়ি:
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংড়ি উপজেলার ৪ ইউনিয়ন তামাক চাষের জন্য বিখ্যাত। তবে বর্তমানে উপজেলার সদর, বাইশারী,দোছড়ি,সোনাইছড়িসহ এসব এলাকার কৃষকরা তামাকের বিকল্প চাষে আশার আলো দেখছে বাঁকখালী,আশারতলিসহ অনেক এলাকার কৃষক।

সোনাইছড়ি ইউনিয়নে হেডম্যান পাড়ার কৃষক উছাইমং মার্মার সাথে কথা বলে জানা যায়, বিগত বছর তামাক চাষ করে বিঘা প্রতি ১৭ হাজার টাকা পেয়েছিল। কিন্তু বর্তমানে একই জমিতে পেঁপে চাষ করে বিঘা প্রতি ৪০ হাজার টাকা পর্যন্ত লাভবান হওয়ার আশা করছেন এই উপজাতী কৃষক।

সোনাইছড়িতে দায়িত্বরত উপ- সহকারী কৃষি কর্মকর্তা পেঁপে চাষীদের সার্বিক প্রশিকক্ষ ও বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন, ফলে তামাক চাষের পরিবর্তে দিন দিন পেঁপে চাষের প্রতি কৃষকের আগ্রহ সৃষ্টি হচ্ছে। অপর দিকে বাঁকখালী কৃষি উপসহকরি জানান আমার ব্লকের কৃষকরা লেবুচাষ ও ভোট্টা লভজনক হওযায় এলাকর কৃষকরা সে এদিকে ঝুকছে।

উপজাতী কৃষক উছাইমং মার্মার সাথে কথা বলে জানা গেছে, তার কাছ থেকে থোয়াইহ্লারী মার্মা, ক্যওয়াং মার্মা, লোয়াইছা মার্মা ও চাইহ্লাথোয়াই মার্মা পেঁপে চাষ শুরু করেছেন। এছাড়াও হেডম্যান পাড়ায় পূর্বে প্রচুর তামাক চাষ হতো। বর্তমানে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারদের সহযোগীতায় তামাকের পরিবর্তে- পেঁপে, লেবু, মাল্টা, কমলা, আম, পেয়ারা, জলপাই-সহ বিভিন্ন সব্জি উৎপাদিত হচ্ছে বিধায় কৃষক প্রচুর লাভবান হচ্ছে। তাই তামাকের বিকল্প চাষে আসার আলো দেখছে নাইক্ষ্যংছড়ির ৪ ইউনিয়নর কৃষক।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •