cbn  

বার্তা পরিবেশক :

কক্সবাজার সদর ও রামু উপজেলার জনগণ ও ভোটারদের প্রতি সহমর্মিতা ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-৩ আসনে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী লুৎফুর রহমান কাজল।

সোমবার নির্বাচনপরবর্তী এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, আমার কর্মী সমর্থকদের উপর নির্বাচনের আগে নৌকার প্রার্থী ও তার সমর্থক সন্ত্রাসীদের হামলা, আড়াই হাজার নেতাকর্মীকে আসামী করে ২৬টি মামলা ও দেড় শতাধিক জনকে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতারের পরও জনগণ স্বতস্ফূর্তভাবে ভোট দিতে গিয়েছিল। কিন্তু প্রশাসনের সহযোগিতায় আওয়ামীলীগ সন্ত্রাসীরা জনগণকে বিভিন্ন স্থানে বাধা দিয়েছে। নির্বাচনের দিন ১৩১টি কেন্দ্র করে আমার পোলিং এজেন্টদের জোরপূর্বক ও মারধর করে বের করে দিয়ে নিজেরাই ব্যালটে সিল-ছাপ্পর মেরে ভরে দিয়েছে। ফলে দুপুরে যারা ভোট দিতে যায়, তাদের ভোট আগেই দেয়া হয়ে যায়। কাস্টিং ভোটের ব্যালট পেপারে দেয়া টিপসই ও প্রকৃত ভোটারের টিপসই মিলিয়ে দেখলে লক্ষ লক্ষ জালিয়াতি ভোট ধরা পড়বে।

তিনি নির্বাচন কমিশনের কাছে এই নির্বাচন বাতিল করে পূননির্বাচনের তফসিল ঘোষণার দাবি জানান। অন্যথায় ইতিহাসে এর কলংকের দায় বর্তমান সিইসি ও আওয়ামীলীগ সরকারকে বহন হতে হবে।

তিনি কক্সবাজার সদর ও রামু উপজেলার জনগণ ও ভোটারদের প্রতি সহমর্মিতা ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, একাদশ সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে আমার পক্ষে কাজ করতে গিয়ে হাজার হাজার কর্মী ও সমর্থক যেভাবে প্রতিপক্ষের হামলা ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন, পঙ্গু হয়েছেন এবং মৃত্যু পথযাত্রী হয়েছেন তাদের ভালবাসা আমাকে চিরকৃতজ্ঞতা পাশে আবদ্ধ করেছে। তাদের ভালবাসা ও সেবাই আমি বাকী জীবনটাও উৎসর্গ করতে চাই। আমি মনে করি, জনগণের রায় ছিনতাই করে চেয়ার দখলের চেয়ে মানুষের মনিকোটায় ঠাঁই পাওয়া অনেক সৌভাগ্যের।

তিনি বলেন, চরম প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও ঐক্যফ্রন্টের নেতাকর্মীরা যেভাবে ধৈর্য করে পরিস্থিতি মোকাবেলা করেছেন তাতে বিবেকের রায়ে আমরাই বিজয়ী হয়েছি। আমৃত্যু আমি জনগণের সাথেই থাকব, ইনশাল্লাহ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •