ফারুক আহমদ, উখিয়া:

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির তথা ২০ দলীয় মনোনীত প্রার্থী সাবেক সাংসদ শাহজাহান চৌধুরীর ধানের শীষ মার্কার নির্বাচনী গণসংযোগ প্রচার প্রচারণা ও পথসভায় ন্যাক্কারজনকভাবে বাধা দেওয়া হচ্ছে। প্রতিদিন থানায় মিথ্যা মামলা দিয়ে পুলিশ, বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে তল্লাসী ও গ্রেফতার করছে। সাংসদ আবদুর রহমান বদির নির্দেশে ও বিএনপির বহিস্কৃত নেতা চেয়ারম্যান খাইরুল আলম চৌধুরীর কালো ইশারায় পুলিশ ও আওয়ামীলীগ যৌথ ভাবে নির্বাচনী পরিবেশ নষ্ট করছে। এমন কি উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ বিনা উস্কানিতে মঙ্গলবার (১৮ ডিসেম্বর) বিকেলে উখিয়ার সদর ষ্টেশনে পুর্ব নির্ধারিত ধানের শীষ মার্কার পথ সভা করতে দেয়নি।

মঙ্গলবার বিকেলে জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ শাহাজাহান চৌধুরীর বাসভবনে তাৎক্ষণিক জরুরী সংবাদ সম্মেলনে উখিয়া উপজেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দরা এমন অভিযোগ উত্থাপন করেন। সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান সরওয়ার জাহান চৌধুরী বলেন, উখিয়া কোথাও ধানের শীষের প্রচার প্রচারণা করতে দিচ্ছে না। এমন কি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে গণ গ্রেফতার চালাচ্ছে পুলিশ। তিনি অভিযোগ করে বলেন, সাংসদ বদির নির্দেশেই রতœাপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খাইরুল আলম চৌধুরী হচ্ছে এসব অন্যায় ও কুটকৌশলের গুরুর নাট।

উখিয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ চৌধুরী সংবাদ সম্মেলনে বলেন, রতœাপালং ইউনিয়ন পরিষদে গভীর রাতে গোপন বৈঠক বসে ধানের শীষ মার্কার প্রচার প্রচারণায় বাঁধা ও মিথ্যা মামলার পরিকল্পনা গ্রহণ করে। উখিয়া থানার পুলিশকে ব্যবহার করে, জাতীয় সংসদের নির্বাচনের সুষ্ঠ পরিবেশ অশান্ত করে তুলেছে। তিনি আরোও বলেন, চেয়ারম্যান খাইরুল আলম চৌধুরী ভিজিডি কার্ড দেওয়ার নামে মহিলা ডেকে সমাবেশ করে খালি আবেদন ফরম হাতে ধরিয়ে দিয়ে নৌকা মার্কায় ভোট দাবী করছে। নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্গন করে তিনি জনগণের সাথে প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, উখিয়া বিএনপির সহ-সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান শাহ কামাল চৌধুরী, সহ-সম্পাদক দলিলুর রহমান শাহীন, হলদিয়া দক্ষিণ ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি জামাল মাহমুদ, মেম্বার আবুল হোছাইন, উখিয়া উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক আরফাত হোসেন চৌধুরী সহ বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির নেতৃবৃন্দরা জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সুষ্ঠু ভাবে ভোট গ্রহণের লক্ষ্যে আচরণ বিধি লঙ্গনকারী ও মিথ্যা মামলার হোতা এবং গোপন পরিকল্পনাকারী চেয়ারম্যান খাইরুল আলম চৌধুরীকে গ্রেফতারের দাবী জানান।

উল্লেখ্য উখিয়া সদর ষ্টেশনে শাহজাহান চৌধুরীর সমর্থনে ধানের শীষ মার্কার নির্ধারিত পথসভায় বাধা প্রদান ও বিএনপির সাধারণ সম্পাদক উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ চৌধুরী সহ অসংখ্য দলীয় নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে এ সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, পুলিশ বিনা অপরাধে বিএনপি কর্মী শামশুল আলম ও তার ছেলে এহেছান সহ অনেককেই গ্রেফতার করেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •