চবি সংবাদদাতাঃ

‘প্রত্যাশা-প্রাপ্তির নিরিখে’প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (চবিসাস) প্রকাশ করেছে সুবর্ণ-রেখা’ নামক সাময়িকী।যেখানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ৫২ বছর পর প্রত্যাশা-প্রাপ্তির হিসেব তুলে ধরা হয়েছে।

রবিবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন প্রাঙ্গণে মহান বিজয় দিবসের আলোচনা সভায় সাময়িকীটির মোড়ক উম্মেচন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দীন চৌধুরী ও উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার।

চবিসাসের উদ্যোগে এটাই প্রথম সাময়িকী। এতে ১১জন শিক্ষক এবং ১৫জন গণমাধ্যম কর্মীর লেখা রয়েছে। যারা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫২বছরের ইতিহাস তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন।

সাময়িকী মোড়ক উন্মোচনকালে চবিসাসের সভাপতি সৈয়দ বাইজিদ ইমন ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল ফয়সাল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, অর্থ সম্পাদক জয় দাশ, প্রচার, প্রকাশনা ও দপ্তর সম্পাদক জোবায়ের চৌধুরী, কার্যনির্বাহী সদস্য আবদুল্লাহ রাকীবসহ সমিতির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সাময়িকীর মোড়ক উম্মেচনকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দীন চৌধুরী বলেন, এ ধরনের সাময়িকী প্রকাশনা সত্যিই প্রশংসার দাবি রাখে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সদস্যদের বিভিন্ন লেখনি বিশ্ববিদ্যালয়ের অগ্রযাত্রায় সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। এর মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের সাংবাদিকদের মেধা শানিত হবে বলেও তিনি আশা করেন।

সাময়িকী প্রকাশের বিষয়ে জানতে চাইলে চবিসাস সভাপতি সৈয়দ বাইজিদ ইমন জানান, বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ৫২ বছর পর প্রত্যাশা-প্রাপ্তির হিসেব তুলে ধরা হয়েছে এ সাময়িকীতে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামোগত, শিক্ষার মান, গবেষনা মান, শিক্ষার্থীদের মৌলিক সমস্যাবলীসহ পরিকল্পিত উন্নয়নে সহায়ক ভূমিকা রাখবে সাময়িকীটি। গণমাধ্যমকর্মী, শিক্ষকদের দৃষ্টিতে তুলে ধরা সংকট ও উন্নয়নযোগ্য দিকগুলো বিশ্ববিদ্যালয়ের অগ্রযাত্রায় সহায়ক হবে বলে আমরা মনে করি

সাময়িকীটির সম্পাদক এবং চবিসাসের প্রচার, প্রকাশনা ও দপ্তর সম্পাদক জোবায়ের চৌধুরী বলেন, এটা গতানুগতিক কোন পত্রিকা নয়। বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ৫২ বছর পর প্রত্যাশা-প্রাপ্তির হিসেব তুলে ধরা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক উন্নয়নযোগ্য বিষয় প্রাধান্য পেয়েছে। এটি প্রশাসন ও গণমাধ্যমকর্মীদের সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করবে।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, উপ-উপাচার্য, অনুষদসমূহের ডিন, আবাসিক হলের প্রভোস্টবৃন্দ, বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতিসহ বিভিন্ন সংগঠন মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •