প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

চকরিয়া উপজেলা বিএনপির একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী ইলিশিয়া-ঢেমুশিয়া ব্রিজ এলাকায় আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কার্যালয়ে গুলি চালিয়ে অফিস ভাঙচুর ও হামলার ঘটনা ঘটেছে। বিএনপির লোকজন হামলা চালিয়ে ২০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে নির্বাচনী অফিসে ভাঙচুর চালায় বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের লোকজন । এতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল কয়েকজন নেতাসহ ১০ নেতাকর্মী আহত হয়েছে।

হামলায় শুরুতর আহত গিয়াস উদ্দিন মেম্বারকে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে ওই এলাকায় থমথমে অবস্থা বিস্তার করছেন। আজ ১৬ ডিসেম্বর রবিবার সকাল ১১টার দিকে ইলিশিয়া-ঢেমুশিয়া ব্রিজ এলাকায় এ হামলা ও গুলি বর্ষণের ঘটনা ঘটে। হামলার ঘটনার পরপরই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে।

আহত হলেন, ঢেমুশিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও তিনবারের সাবেক এমইউপি গিয়াস উদ্দিন মেম্বার (৪৮), ঢেমুশিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য নাজেম উদ্দিন (৪০), ঢেমুশিয়া ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সাহাব উদ্দিন বাচ্চু (৪২), সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন (৪২), একই ইউনিয়নের যুবলীগের সহসভাপতি মিনার (৩৫)সহ আরো কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হয়েছে।

আহত গিয়াস উদ্দিন মেম্বার অভিযোগ করেন, সকাল ১১টার ইলিশিয়া-ঢেমুশিয়া ব্রিজ এলাকায় আওয়ামী লীগের নির্বাচনী অফিসে অর্তকিতভাবে একদল বিএনপির ক্যাডার হামলা চালায়। এতে তিনিসহ আরো অন্তত ১০জন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী আহত হয়েছে। হামলার সময় নেতৃত্বে দেন, ঢেমুশিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সা. সম্পাদক সাবের আহমদ, অর্জন মিয়া, গিয়াস উদ্দিন মেম্বার, নুরুল আমিনসহ শতাধিক বিএনপির লোকজন হামলা ও গুলি বর্ষণ করেন।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘ঢেমুশিয়া এলাকায় আওয়ামী লীগের অফিসে হামলার ঘটনায় পুলিশ ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। ভোক্তভোগী অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •