বার্তা পরিবেশক:
কক্সবাজার-২ (মহেশখালী-কুতুবদিয়া) আসনের জনগণ মনোনিত মাছ মার্কার সংসদ সদস্য প্রার্থী আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন পরিবেশ বিজ্ঞাপনী ড. আনসারুল করিম জোরেসোরে প্রচারণা চালাচ্ছেন। তিনি সকাল থেকে বের হয়ে সারাদিন পেরিয়ে রাত পর্যন্ত একটানা গণসংযোগ করে যাচ্ছেন। এসময় তিনি পথসভাসহ নানাভাবে ভোটের প্রচারণা চালাচ্ছেন। এছাড়াও মাইকিংসহ আরো বিভিন্নভাবে নিরবচ্ছিন্নভাবের তিনি প্রচারণা অব্যাহত রেখেছেন।

ইতিমধ্যে তিনি পুরো মহেশখালীতে ব্যাপকভাবে পথসভা সম্পন্ন করেছেন। ওই পথসভায় হাজার হাজার জনগণ অংশ নিয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন। এছাড়াও তিনি প্রতিদিন বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন। গণসংযোগকালে তিনি নারী-পুুরুষসহ সকল স্তরের জনগণের সাথে কুশল বিনিময় করে ভোট প্রার্থণা করছেন।

তিনি যেখানেই গণসংযোগ করতে যাচ্ছেন সেখানে মানুষের ঢল নামছে। তাকে পেয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে ভোটাররা। ভোটাররা জানাচ্ছেন, কক্সবাজার-২ আসনের যে সব প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে সবার মধ্যে ড. আনসারুল করিমই সর্বোচ্চ যোগ্য। একজন সহজ-সরল মানুষ হিসেবে সকল স্তরের মানুষের ব্যাপক পছন্দের প্রার্থী তিনি। তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে তাঁর যোগ্যতা বলে চলমান উন্নয়ন প্রকল্পগুলো সঠিকভাবে পরিচালিতসহ সামগ্রিক উন্নয়ন হবে বলে জনগণ আশা করছেন।

গণসংযোগকালে জনগণের এই প্রত্যাশাকে আরো আশান্বিত করে ড. আনসারুল করিম বলছেন, তিনি জনগণের দাবির প্রেক্ষিতেই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। কারণ মহেশখালী-কুতুবদিয়াকে মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে হবে। মহেশখালীর মানুষের মাটির অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। নির্যাতিত জনগণকে উদ্ধার করতে হবে। মহেশখালীতে পিছিয়ে পড়া শিক্ষা ব্যবস্থাকে উন্নত করে সকলকে শিক্ষার আওতায় আনতে হবে। তিনি নির্বাচিত অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এসব কাজ করবেন। এছাড়াও গত পাঁচ বছরে দলের লোকজনের হাতেই নির্যালিতত আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করবেন।

এদিকে গতকাল শনিবার ড. আনসারুল করিম মহেশখালী কলেজের শিক্ষক ও ছাত্রদের সাথে এক মতবিনিময় সভা করেন। উক্ত মত বিনিময় সভায় শত শত ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এসময় তিনি বলেন, তিনি নির্বাচিত হলেও মহেশখালী কলেজকে বিশ^বিদ্যালয়ে রূপান্তর এবং শিক্ষার গুণগত মান আরো বৃদ্ধি করতে অগ্রণী ভূমিকার রাখবেন। এছাড়া পুরো উপজেলার শিক্ষা ব্যবস্থাকে বিশেষ ব্যবস্থায় ঢেলে সাজাবেন। পরে পৌরসভা, বড়মহেশখালী ও ছোটমহেশখালী ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •