কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া:
উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প ভিত্তিক পতিতাবৃত্তির আভাষ পাওয়া গেছে। কতিপয় স্থানীয় দালাল চক্রের মাধ্যমে কিছু সংখ্যক রোহিঙ্গা নারী ক্যাম্পের অভ্যান্তরে, বিভিন্ন বাসাবাড়ীতে, ইনানী হোটেল মোটেল ও গেষ্ট হাউজে অভিনব কায়দায় ক্যাম্পে চাকুরীর অজুহাত দেখিয়ে পতিতাবৃত্তি করছে।
গত ৩ মাসে ইনানী পুলিশ ফাঁড়ি হোটেলে অভিযান চালিয়ে প্রায় ২৮ জন নারী পুরুষকে অনৈতিকতার অভিযোগে আটক করেছে বলে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই আনিসুর রহমান জানিয়েছেন। অনুরূপ শুক্রবার ভোর রাতে শীলের ছড়া মোঃ আলীর ভিঠা নামক এলাকায় একটি বাড়ী থেকে অসৎ উদ্দেশ্য অপেক্ষমান কুতুপালং ক্যাম্পের রোহিঙ্গা নারী মৃত সোলতান আহম্মদের স্ত্রী এলেমা খাতুন প্রকাশ তৈয়বা (২২) ও শীলের ছড়া গ্রামের মৃত প্রদীপ বড়ুয়ার ছেলে সোহেল বড়ুয়া (২৭) কে স্হানীয়রা আটক করে।পরে পুলিশ খবর পেয়ে অনৈতিক কাজের অভিযোগে তাদের আটক করে। উখিয়া থানার সহকারী উপ পরিদর্শক বিলাশ জানান, আটককৃতদের উখিয়ার সহকারী কমিশনার ভুমি ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ ফখরুল ইসলামের আদালতে হাজীর করা হলে জবানবন্ধিতে এলামা খাতুন অনৈতিকতার আশ্রয় নেওয়ার কথা অস্বীকার করেন। পরে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তাদেরকে পুলিশের মাধ্যমে মুছলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।স্হানীয় বোদ্ধ সুরক্ষা কমিটির সাধারণ সম্পাদক রপন বড়ুয়া ও জালাল, দিদার মিয়া,কামাল উদ্দিন সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন,ঐ বাড়িতে নিয়মিত মাদক সেবীদের আড্ডা ও নারীদের নিয়ে অনৈতিক কাজ করে আসছে।এরই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে সোহেল বড়ুয়া ও মোজাম্মেল হক ক্যাম্প থেকে এক রোহিঙ্গা নারীকে এনে অনৈতিক কাজ করার খবর পেয়ে এলাকাবাসী কুরিয়া প্রবাসী বিবেক বড়ুয়ার ছোট ভাই সোহেল বড়ুয়া ও রোহিঙ্গা নারী এলামা খাতুনকে হাতে নাতে আটক করে পুলিশকে খবর দেয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •