বার্তা পরিবেশক :

চকরিয়া-পেকুয়া (কক্সবাজার-১) আসনে জননেত্রী শেখ হাসিনা তথা আওয়ামীলীগ (মহাজোট) মনোনীত সংসদ সদস্য প্রার্থী চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ জাফর আলম গতকাল বুধবার ১২ ডিসেম্বর দিনব্যাপী চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় নৌকার সমর্থনে নির্বাচনী প্রচারনা ও গনসংযোগ করেছেন। এদিন তিনি চকরিয়া উপজেলার চিরিঙ্গা ইউনিয়ন, পশ্চিম বড়ভেওলা, পুর্ববড় ভেওলা ইউনিয়ন, খুটাখালী ডুলাহাজারা ও লক্ষ্যারচর ইউনিয়ন এবং চকরিয়া পৌরসভার ৪নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের কর্মীসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। একই সময়ে তিনি পেকুয়া উপজেলার বারবাকিয়া, শীলখালী ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের ব্যাপক গনসংযোগ করেছেন। বিকালে তিনি চকরিয়া উপজেলার হিন্দু, বৌদ্ধ ঐক্য পরিষদের সাথে নির্বাচনী মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।

এদিন সন্ধ্যা সাতটায় তিনি মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলার পশ্চিম বড়ভেওলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কর্মী সভায় অংশ নেন। দিনব্যাপী গনসংযোগকালে তিনি একাধিক উঠান বৈঠকে নৌকার পক্ষে জনমত গড়ে তুলতে সাধারণ জনগন ছাড়াও আওয়ামীলীগ এবং সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় অংশগ্রহন করেছেন। সর্বশেষ রাতে তিনি চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের জরুরী বর্ধিত সভায় উপস্থিত থেকে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।

দলের কর্মীসভায় আওয়ামীলীগের সংসদ সদস্য প্রার্থী আলহাজ জাফর আলম বলেন, দেশের অগ্রগতি ও জনগনের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার মতো সৎ দক্ষ ও বিচক্ষন নেতৃত্বের বিকল্প নেই। বর্তমানে শেখ হাসিনার সুদক্ষ নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বিশে^র সামনে উন্নতশীল দেশের কাতারে। ধারাবাহিক উন্নয়নের কারনে চকরিয়া-পেকুয়া আসনে নৌকার পক্ষে জনগনের মাঝে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। দেশের চলমান অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে আওয়ামীলীগকে আবারও ক্ষমতায় আনতে হবে। সরকারের উন্নয়ন অগ্রগতির সাথে আমাদেরকে অবিচল থাকতে হবে। সেইজন্য জননেত্রী শেখ হাসিনাকে চকরিয়া-পেকুয়া আসনটি উপহার দিতে হবে। কারণ উন্নয়নের মাধ্যমে চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলাকে সাজাতে আবারও দরকার শেখ হাসিনার সফল সরকার।

তিনি বলেন, দেশের অগ্রগতি উন্নয়নে সাথে চকরিয়া-পেকুয়াবাসির এগিয়ে যেতে হবে। চকরিয়া-পেকুয়ার ২৫টি ইউনিয় ও একটি পৌরসভার এলাকার উন্নয়ন ও জনগনের ভাগ্য পরিবর্তনে একাদশ নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের প্রতীক নৌকাকে বিজয়ী করতে হবে। আমি চাই জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতের পরশে উন্নয়নসমৃদ্ধ আধুনিক চকরিয়া-পেকুয়া বির্নিমান করতে। জনগনের ভালবাসা নিয়ে দলের নেতাকর্মীদেরকে ভেদাভেদ ভুলে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিতে সর্বশক্তি নিয়ে কাজ করতে হবে।

আওয়ামীলীগের প্রার্থী আলহাজ জাফর আলম বলেছেন, চকরিয়া-পেকুয়ার মানুষ চান সত্যিকারের উন্নয়ন চায়। উন্নয়নের প্রয়োজনে জনগন সার্বক্ষনিক যাকে কাছে পাবে এবার তাকেই বিপুল ভোটে নির্বাচিত করবে। অতীতে বিএনপির প্রার্থী ভোট নিয়ে জনগনের সঙ্গে প্রতারণা করেছে, কোনদিন মানুষের বিপদে আপদে খবর নেয়নি, এলাকার উন্নয়নে কাজ করেনি। তাঁরা নির্বাচনের মৌসুম আসলে এলাকায় উপস্থিত হন। জনগনের সামনে নতুন নতুন কথা বলেন। এবার চকরিয়া-পেকুয়ার সংগ্রামী জনতা সেইসব মৌসুমী প্রার্থীদেরকে ভোটের মাধ্যমে অবহেলার সমুচিত জবাব দেবে। ইনশাল্লাহ দেখবেন ৩০ ডিসেম্বর চকরিয়া-পেকুয়াবাসি জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের প্রতীক নৌকাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করবে।

বুধবার দিনব্যাপী নৌকার সমর্থনে ব্যাপক গনসংযোগ ও আওয়ামীলীগের কর্মী সভায় এমপি প্রার্থী আলহাজ জাফর আলমের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ হোছাইন, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফাসিয়াখালী ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আমিনুর রশিদ দুলাল, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এস এম গিয়াস উদ্দিন, জিএম আবুল কাসেম, চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী, মাতামুহুরী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পশ্চিম বড় ভেওলা ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বাবলা, সাধারণ সম্পাদক ও সাহারবিল ইউপি চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল, সিনিয়র সহ-সভাপতি এসএম জাহাংগীর আলম বুলবুল, সহ-সভাপতি মকছুদুল হক ছুট্টু, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম লিটু, সাধারণ সম্পাদক আতিক উদ্দিন চৌধুরী, কক্সবাজার জেলা পরিষদের সদস্য ও পেকুয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহাংগীর আলম, চিরিঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ জসীম উদ্দিন, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, সহ-সভাপতি সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম, উজানটিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এটিএম শহিদুল ইসলাম, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোক্তার আহমদ চৌধুরী, এমআর চৌধুরী, সহসভাপতি ফজলুল করিম সাঈদী, ছৈয়দ আলম কমিশনার, যুগ্ম সম্পাদক জামাল উদ্দিন জয়নাল, যুগ্ম সম্পাদক চেয়ারম্যান আজিমুল হক আজিম, শাহনেওয়াজ তালুকদার, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, শওকত ওসমান চেয়ারম্যান, সাংবাদিক মিজবাউল হক, আওয়ামীলীগ নেতা আমিনুল করিম, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি তপন কান্তি দাশ, সহ-সভাপতি অধ্যাপক মোসলেহ উদ্দিন মানিক, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক রতন কুমার সুশীল, ফেরদৌস ওয়াহিদ, সেলিম উদ্দিন লিটন, কাউন্সিলর রেজাউল করিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মুজিবুর রহমান লিটন, নজরুল ইসলাম লিটন, ফরিদুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা মিফতাব উদ্দিন চৌধুরী, পুর্ববড় ভেওলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফ হোসেন মেম্বার, পশ্চিম বড়ভেওলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল, চকরিয়া পৌরসভা কুষকলীগের সভাপতি সুলাল কান্তি সুশীল, আলহাজ নজরুল ইসলাম, আমির হোসেন আমু, চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শহীদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক কাউছার উদ্দিন কছির, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শওকত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক বাবলা দেবনাথ, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি জামাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সাইফ উদ্দিন মামুন, চকরিয়া পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি হাসানগীর হোছাইন, সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম সোহেল, সাবেক ছাত্রনেতা রনী চৌধুরী, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আলহাজ হায়দার আলী, সাবেক সভাপতি শেফায়েতুল কবির চৌধুরী বাপ্পী, সাবেক সম্পাদক সাজিদ হোসেন শাকিব, সাদ্দাম হোসেন মিঠু, চকরিয়া পৌরসভা শ্রমিকলীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন ধুলু, চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ মারুফ, সাধারণ সম্পাদক রুবেল মাহমুদ, চকরিয়া পৌরসভা ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা পারভেজ ও ছাত্রনেতা আবদুল বারেক টিপু প্রমুখ।

অপরদিকে চিরিঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা আলহাজ জসীম উদ্দিনের সভাপতিত্বে দক্ষিন মাছঘাট স্টেশনে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম। সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতা নুরুল আলম, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোক্তার আহমদ চৌধুরী, সহ-সভাপতি ছৈয়দ আলম কমিশনার, দপ্তর সম্পাদক মাস্টার আবদুল জলিল, আওয়ামীলীগ নেতা প্যানেল চেয়ারম্যান আলহাজ জাফর আলম সিআইপি, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আহমদ কবির, প্যানেল চেয়ারম্যান সালাহউদ্দিন, আওয়ামীলীগ নেতা ফরিদুল আলম, ইউপি মেম্বার রেজাউল করিম প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •