cbn  

বার্তা পরিবেশক:
রামু উপজেলা কাউয়ারকোপ বাজারে আওয়ামী লীগের লোকজন কর্তৃক বিএনপি নেতাকর্মীর উপর হামলার অভিযোগ করেছেন ধানের শীষের প্রার্থী লুৎফুর রহমান। হামলায় বিএনপির ও যুবদলের তিন নেতা আহত হয়েছে। এসময় ধানের শীষের অসংখ্য পোস্টার ও ব্যানার ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে। অবরুদ্ধ করে রাখা হয় ধানের শীষের লোকজন। বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

নৌকার প্রার্থী সাইমুম সরওয়ার কমলের নির্দেশে ওই এলাকার ওসমান, মঞ্জুর ও লেংড়া আজিজের নেতৃত্বে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ লুৎফুর রহমান কাজলের। ওই সময় কমলও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

লুৎফুর রহমান কাজল অভিযোগ করে জানান, আজ বুধবার কাউয়ারকোপ বাজারে ধানের শীষ মার্কার পথসভা ছিলো। পথসভায় তিনি প্রধান অতিথি ছিলেন। পথসভায় বিপুল মানুষের সমাগম হয়। পথসভা শেষ করে লুৎফুর রহমান কাজল ওই স্থান ত্যাগ করার কিছুক্ষণের মধ্যে ওসমান, মঞ্জুর ও লেংড়া আজিজের নেতৃত্বে একদল সশস্ত্র আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ধানের শীষের লোকজনের হামলা করে। তারা লাঠি, লোহার রড ও হাতুড়ি নিয়ে এই হামলা চালায়। হামলায় স্থানীয় যুবদল নেতা এনামুল হক, বিএনপি নেতা রাশেদ ও মামুন আহত হয়েছে। হামলায় অনেকে পালিয়ে রক্ষা পেয়েছে। তবে বাজারের দোকানের ভিতরে ঢুকে থাকা ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হানিফ জিহাদীসহ বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের বেশকিছু নেতাকর্মীকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়।

এদিকে রামু খুনিয়াপালংয়েও চেয়ারম্যান আবদুল মাবুদ এবং সাবেক চেয়াম্যান আবদুল গণির নির্দেশে ধানের শীষের মিছিলে হামলা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন লুৎফুর রহমান কাজল। এসব হামলার ঘটনায় তিনি রিটানিং কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করছেন বলে জানিয়েছেন।

অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে সাইমুম সরওয়ার কমল অভিযোগ অস্বীকার করে জানিয়েছেন, তার কোনো লোকজন কারো উপর হামলা করেনি। এটা সাজানো ঘটনা।

রামু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল মনসুর বলেন, ‘সেখানে দু’পক্ষের লোকজন মধ্যে গন্ডগোলের খবর পেয়েছি। খবর পেয়ে সাথে সাথে পুলিশ পাঠিয়েছি। বিস্তারিত পরে জানতে পারবো।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •