মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী:
কক্সবাজার-২ (মহেশখালী-কুতুবদিয়া) আসনে ২৩ দলীয় ঐক্যজোট তথা জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত একক প্রার্থী, জামায়াত ইসলামীর কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এ.এইচ.এম হামিদুর রহমান আযাদকে শেষ পর্যন্ত স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রতীক আপেল প্রতীক নিয়েই নির্বাচন করতে হচ্ছে।
কক্সবাজার জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং অফিসার মোঃ কামাল হোসেন এ.এইচ.এম হামিদুর রহমান আযাদকে গত ১০ ডিসেম্বর ধানের শীষ প্রতীকের পরিবর্তে স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রতীক ডালিম বরাদ্দ দেয়ার বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে কারাবন্দী এ.এইচ.এম হামিদুর রহমান আযাদের পক্ষে আপীল দায়ের করা হলে নির্বাচন কমিশন গত ১১ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সেই আপীল খারিজ করে দেন।
নির্বাচন কমিশনের খারিজ আদেশের বিরুদ্ধে ১২ ডিসেম্বর বুধবার হাইকোর্টে আপীল দায়ের করা হলে সেটিও হাইকোর্ট একইদিন খারিজ করে দেন। ফলে ২৩ দলীয় জোটের কেন্দ্রীয় লিয়াঁজো কমিটির বুধবার সন্ধ্যায় নেয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কক্সবাজার-২ আসনে এ.এইচ.এম হামিদুর রহমান আযাদ আপেল প্রতীক নিয়েই নির্বাচন করবেন। এ তথ্য ঢাকা থেকে বুধবার সন্ধ্যায় ০১৮১৭২১৩১৩০ নং মুঠোফোন থেকে এ প্রতিবেদককে নিশ্চিত করেছেন-এ.এইচ.এম হামিদুর রহমান আযাদের নির্বাচনী মামলা সংক্রান্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা গোলাম কবির। ধানের শীষ প্রতীক পেতে রিটার্নিং অফিসার, নির্বাচন কমিশন ও হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে সুপ্রীম কোর্টের আপীল বিভাগের চেম্বার জজ আদালতে আপীল করবেন কিনা-এ প্রশ্নের জবাবে গোলাম কবির বলেন- আপীল বিভাগের চেম্বার জজ বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী’র আদালতে মামলার জট প্রকট আকার ধারণ করেছে। রাষ্ট্রপক্ষে এটর্নি জেনারেল এডভোকেট মাহবুবে আলম চেম্বার জজ আদালতে নির্বাচনী আপীল শুনানী করতে রাজী না হওয়ায় সেখানে তারা বুধবার আপীল দায়ের করেননি বলে তিনি জানান। এছাড়া সুপ্রীম কোর্ট বৃহস্পতিবার ও সোমবার মাত্র দু’দিন খোলা আছে। এত অল্প সময়ের মধ্যে এই আপীল শুনানী করা সম্ভব নাও হতে পারে। তাই প্রচারনার সময় দিন দিন অতিবাহিত হয়ে যাওয়ায় ২৩ দলীয় জোটের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের পরামর্শে আপেল প্রতীক নিয়ে কক্সবাজার-২ আসনে নির্বাচনী কার্যক্রম বুধবার থেকে পুরোদমে শুরু করে দেয়া হয়েছে। এদিকে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, এএইচএম হামিদুর রহমান আযাদের নিজস্ব ফেসবুক পেইজ সহ স্থানীয় নেতাকর্মীদের ফেসুবুকেও কক্সবাজার-২ আসনে আপেল প্রতীক নিয়ে প্রচারনার চালানোর সংবাদ ও ছবি ব্যাপকভাবে প্রচারিত হচ্ছে। সাবেক ছাত্রনেতা গোলাম কবিরের কাছে এ.এইচ.এম হামিদুর রহমান আযাদ কখন কারামুক্ত হচ্ছেন, জানতে চাইলে তিনি বলেন-তিনি সবক’টি মামলায় জামিনে রয়েছেন। কিন্তু সরকার পক্ষ এ জামিনের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপীল করায় তিনি কারামুক্ত হতে পারছেননা। তবে আপীল শুনানী করে এ.এইচ.এম হামিদুর রহমান আযাদকে কারামুক্ত করার চেষ্টা করা হলেও নির্বাচনের আগে সুপ্রীম কোর্ট খোলা আছে মাত্র দু’দিন। এই অল্প সময়ের মধ্যে আপীল শুনানী করে এ.এইচ.এম হামিদুর রহমান আযাদকে জামিন নিয়ে তাঁকে আদৌ কারামুক্ত করার ব্যাপারে গোলাম কবির সন্দেহপোষন করেন।
এদিকে, বর্তমানে মহেশখালী অবস্থান করা কক্সবাজার জেলা ছাত্র শিবিরের সভাপতি রবিউল হোসেন বুধবার রাত্রে জানিয়েছেন-এ.এইচ.এম হামিদুর রহমান আযাদ ধানের শীষ প্রতীক পাওয়ার জন্য সর্বশেষ আইনীলড়াই চালিয়ে যাবেন।
তিনি বলেন-আইনী লড়াই এর মাধ্যমে ধানের শীষ প্রতীক পাওয়া না গেলে এ.এইচ.এম হামিদুর রহমান আযাদ অবশ্যই আপেল প্রতীক নিয়েই নির্বাচন করবেন বলে জানান।
এবিষয়ে কুতুবদিয়া উপজেলা জামায়াতের আমীর আনোয়ার হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান-যেহেতু আইনী লড়াই-এ এ.এইচ.এম হামিদুর রহমান আযাদ ধানের শীষ প্রতীক পাননি-তাই আমারা আপেল প্রতীক নিয়েই নির্বাচন করবো ইনশাল্লাহ্।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •