cbn  

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

কক্সবাজার জেলায় মানবাধিকার সংরক্ষণে গঠিত এনজিও- সিএসও কোয়ালিশন ফর হিউম্যান রাইট্স এর উদ্যোগে কক্সবাজার জেলায় ৭০তম বিশ্ব মানবাধিকার দিবস-২০১৮ উদযাপন করা হয়। ২০১৮ সালের প্রতিপাদ্য বিষয়ে “সকলের জন্য সমধিকার, ন্যায় বিচার এবং মানবিক মর্যাদা। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষ্যে কোয়ালিশনের পক্ষ থেকে র‌্যালি ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

সকাল ০৯:০০টায় জেলা প্রশাসকের হাতে মানবাধিকার দিবসের স্লোগান সম্বলিত টি-শার্ট ও ক্যাপ তুলে দেয়ার মাধ্যমে দিবসের কর্যক্রম শুরু হয়। এরপর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে র‌্যালি যাত্রা শুরু করে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে গিয়ে সমাপ্ত হয়।

সকাল ১০:০০টায় জেলা পরিষদ মিলনায়তনে দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে আলোচনা সভা শুরু হয়। কোয়ালিশনের আহ্বায়ক এবং পালস কক্সবাজার এর চেয়ারম্যান আবু মোরশেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কোয়ালিশনের সদস্য সচিব এবং বেসরকারি সংস্থা একলাব এর নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ তারিকুল ইসলাম। তিনি কক্সবাজার জেলায় এনজিও-সিএসও মানবাধিকার কোয়ালিশন গঠনের সংক্ষিপ্ত পটভূমি তুলে ধরেন। হেল্প কক্সবাজার এর নির্বাহী পরিচালক আবুল কাসেম বলেন, কক্সবাজার জেলায় মানবাধিকার নিয়ে কাজ করার অনেক ক্ষেত্র রয়েছে। তিনি দিবসটি আয়োজনে সহযোগিতার জন্য ইউএনডিপি কে ধন্যবাদ প্রদান করেন। উন্নয়ন সংস্থা কোডেক’র প্রতিনিধি কানিজ ফাতেমা তার বক্তব্যে মানবাধিকার দিবসের ঐতিহাসিক গুরুত্ব তুলে ধরেন। তিনি মানবাধিকার রক্ষায় নারি-পুরুষ নির্বিশেষে সকলের অশগ্রহণ নিশ্চিতকরণে কোয়ালিশনের প্রতি আহ্বান জানান। স্থানীয় সংস্থা নোঙর এর নির্বাহী পরিচালক দিদারুল আলম রাশেদ বলেন, বিভিন্ন কারণে কক্সবাজার জেলার মানবাধিকার পরিস্থিতি অন্যান্য জেলার তুলনায় অধিকতর অস্থিতিশীল। সাম্প্রতিক সময়ের রোহিঙ্গা পরিস্থিতি অত্র জেলার মানবাধিকার পরিস্থিতিকে আরো অস্থিতিশীল করে তুলেছে। জেলার মানবাধিকার সংরক্ষণে সবাইকে এক যোগে কাজ করার জন্য তিনি উপস্থিত সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তিনি সবাইকে যার যার স্থান থেকে আরো দায়িত্বশীল হওয়ার জন্য অনুরোধ জানান। উন্নয়ন সংস্থা মুক্তি কক্সবাজার প্রতিনিধি অশোক কুমার বলেন কোয়ালিশনের উদ্যোগটা প্রশংসনীয় এবং যুব সমাজকে এ বিষয়ে সচেতন করা আমাদের প্রয়োজন। এছাড়াও কক্সবাজার হিউম্যান রাইটস ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (সি.এইচ.আর.ডি.এফ) ও স্বপ্নের সিঁড়ি প্রতিনিধিবৃন্দ মানবাধিকার বিষয়ে বিশেষ করে কক্সবাজার জেলার সকল উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে সকল মানুষের মানবাধিকার রক্ষায় আরো নিবেদিত ও দায়িত্বশীলভাবে কাজ করার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান। তারা এ বিষয়ে কাজ করার জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

সভায় উপস্থিত সকল সদস্য মানবাধিকার সংরক্ষণে বিশেষ করে নৃ-গোষ্ঠি, দলিত ও আদিবাসী জনগোষ্ঠির অধিকার রক্ষায় কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। দিবসটি উদযাপনে সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করে জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচী (ইউএনডিপি)। কক্সবাজার জেলায় কর্মরত স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ের বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থা দিবসটি উদযাপনে সক্রীয় অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকল সদস্যের প্রতি কোয়ালিশনের সভাপতির পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয় এবং নিজ নিজ অবস্থান থেকে নৈতিক মানবাধিকার চর্চার প্রত্যাশা ব্যক্ত করে আলোচনা সভা সমাপ্ত করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •