ইমাম খাইর, সিবিএনঃ
কক্সবাজারের বহুল বিতর্কিত শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরীকে রিপোর্ট নিয়ে জাল জালিয়াতি ও প্রতারণার অভিযোগে ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে প্রশাসন। সেইসাথে ল্যাবরেটরী বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।
শনিবার (৮ ডিসেম্বর) বিকালে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট শেখ সেলিম ও ফাজানা প্রিয়ংকা এ অভিযান চালান।
সুত্র জানায়, মন্ত্রী পরিষদ সচিব শফিউল আলমের মা শহীদ জননী আলমাছ খাতুনের রক্ত ও ইফরিন পরীক্ষায় ভুল রিপোর্ট দেয় শেভরন। বিষয়টি স্বজনরা প্রশাসনকে অভিযোগ করে।
একই অভিযোগে গত বছরের ১১ নভেম্বর অভিযান চালিয়ে শেভরনকে ৪ লাখ টাকা নগদ জরিমানা করেছিল র‌্যার।
জানা যায়, আলমাছ খাতুন দীর্ঘ এক মাস ধরে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের আইসিউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। গত ৩০ নভেম্বর কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাক্তার ফাহিম রোগীর রক্ত ও ইউরিন পরীক্ষা করার জন্য ব্যবস্থা পত্রে লিখে দেন। জেলা সদর হাসপাতালে ওই পরীক্ষার ব্যবস্থা না থাকায় শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরীতে পরীক্ষার জন্য যান রোগীর স্বজনরা।
সেখানে ওইদিন রোগির রক্ত নিতে পারলেও ইউরিন দিতে পারেনি। পরবর্তীতে ইউরিন নেওয়ার কথা থাকলেও শেভরণ ল্যাবরেটরীতে রোগীর ইউরিন সংগ্রহ না করে রক্তের পরীক্ষা পত্রের সাথে ইউরিনের পরীক্ষার রির্পোটসহ কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। অতপর ভুল রিপোর্টটি রোগীর স্বজনসহ হাসপাতালের দায়িত্বরত সেবিকা ও চিকিৎসকের নজরে পড়ে। বিষয়টি নিয়ে হাসপাতালে হৈচৈ পড়ে যান।
অবশেষে সঠিক কোন কাগজপত্র উপস্থাপন করতে না পারা, রিপোর্ট নিয়ে জাল জালিয়াতির অভিযোগে ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট শেখ সেলিম ও ফাজানা প্রিয়ংকা জরিমানা ও ল্যাবরেটরীটি বন্ধ করে দেয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •