আবদুল মজিদ, চকরিয়া:
চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়ার চিরিঙ্গা হাইওয়ে পুলিশের অভিযানে পেটের ভেতর (পায়ুপথে) দিয়ে পাচারকালে ১ হাজার ইয়াবাসহ ২জন আটক হয়েছে।
মঙ্গলবার (৪ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত ১.২৫ ঘটিকায় কক্সবাজার-চট্রগ্রাম মহাসড়কের চকরিয়ার বানিয়ারছড়াস্থ আমতলী এলাকায় চিরিংগা হাইওয়ে পুলিশের এসআই সাফায়েত উল্লাহর নেতৃত্বে হানিফ এন্টারপ্রাইজের একটি বাসগাড়ী (নং ঢাকা মেট্টো-ব-১৫-১১৯৯) তল্লাসী চালিয়ে ২জনকে আটক করেন। পরে একজনের কাছে ২টি প্যাকেটে মোড়ানা ৫০০ পিস এবং অপরজনের কাছ থেকে এক্সরে রিপোর্টের মাধ্যমে পাওয়া পেটের ভেতরে (পায়ুপথে) কনডমের ২ প্যাকেটে ৫০০ মোট ১হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করেন। এসময় তারা জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেন ইয়াবাসমূহ কক্সবাজার থেকে ঢাকার মানিকগঞ্জ নিয়ে যাচ্ছিলেন। বুধবার (৫ ডিসেম্বর) আদালতের মাধ্যমে তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
আটককৃতরা হলেন- চকরিয়া পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের পালাকাটা ইমামউদ্দিন পাড়া গ্রামের আবুল কালামের পুত্র হেলাল মিয়া (১৮) এবং চকরিয়া উপজেলার সুপাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের ভিলিজারপাড়া গ্রামের মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমানের পুত্র আবদুল আজিজ (২২)। এছাড়াও পুলিশের হাতে ধৃত দুই ব্যক্তি স্বীকার করেন যে, উদ্ধারকৃত ইয়াবা ট্যাবলেট সমূহ কক্সবাজারের জনৈক রাজিব নামে এক ব্যক্তি ঢাকার শীলখালী মানিকগঞ্জ থানাধীন ছোটন নামে এক ইয়াবা ব্যবসায়ীর কাছে পাঠাচ্ছিলেন। তারা ইয়াবা পাচারকারী বাহক হিসেবে ভাড়ায় কাজ করছেন।
চকরিয়ার চিরিঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাড়ির (আইসি) ইন্সপেক্টর মোঃ সাইদুল ইসলাম জানান, পায়ুপথ দিয়ে ইয়াবা পাচারের সময় আটককৃত ২জন এবং ইয়াবার চালানদাতা ও গ্রহীতা ২জনসহ ৪জনের নাম উল্লেখ করে ১৯৯০ সনের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে চকরিয়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •