নির্বাচনী সমীকরণ: আসন কক্সবাজার-১

যে জমিতে ফলন বেশী, সে জমিতে আগাছাও বেশী

|| মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী ||

তিন ডিসেম্বর, সোমবার। কক্সবাজার-১ আসনে আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থীর পেকুয়া বাজার কমিউনিটি সেন্টারে একটি কর্মীসভা হয়েছে। কর্মীসভাতে বিএনপি’র আড়াই’শতাধিক(?) নেতাকর্মী আওয়ামীলীগে যোগদানের একটা আনুষ্ঠানিকতা করা হয়েছে। গণমাধ্যমে এ খবরটি বেশ ফলাও করে ছাপা হয়েছে। কথিত যোগদান অনুষ্ঠানে যারা যোগদান করেছেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে, তাঁরা কি এখন আদৌ বিএনপি’র রাজনীতির সাথে জড়িত আছে ? কথিত যোগদানকৃতদের সংখ্যা প্রকৃতপক্ষে ক’জন? স্থানীয়ভাবে তাদের গ্রহনযোগ্যতা কতটুকু- ইত্যাদি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বার বার। এসব প্রশ্ন নিয়ে পেকুয়াতে ক’দিন ধরে বেশ মুখরোচক আলোচনা ও হাসহাসি চলছে। একর্মীসভা হয়ত নির্বাচন আচরনবিধি লঙ্গন করেছে। সে বিষয়টা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা দেখবেন।

এবিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে-পেকুয়া উপজেলার উজানটিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি তোফাজ্জল করিমের ভাই আবদুর রহিম কথিত যোগদানকৃতদের একজন। আরেকজন হচ্ছেন-একই ইউনিয়ন পরিষদের এক নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার সাইফুল ইসলাম। একসময় যুবদলের রাজনীতি’র সাথে তৃণমূল পর্যায়ে সে সম্পৃক্ত থাকলেও দলীয় আদর্শ ও শৃঙ্খলা বিরোধী কর্মকান্ডে লিপ্ত থাকায় তাকে চলতি সালের দশ নভেম্বর দল থেকে বহিষ্কার করা হয় বলে দলীয় সুত্র দাবী করেছে। তৃতীয়জন হচ্ছেন-জনৈক বোরহান। তিনি নিজেকে স্বেচ্ছাসেবকদলের নেতা বলে দাবী করলেও স্বেচ্ছাসেবক দলের পেকুয়া উপজেলা শাখার সভাপতি আহসান উল্লাহ সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বলেছেন-বোরহান নামে কোন নেতাকর্মী স্বেচ্ছাসেবকদলের কোন কমিটিতে কোন পর্যায়ে নেই ও ছিলনা। মূলত যোগদান অনুষ্ঠানে এ তিনজন ছাড়া কথিত আড়াই’শজনের মধ্যে আর কোন নাম ম্যাগনিফাই গ্লাস দিয়ে দেখার পরও খুঁজে পাওয়া যায়নি। আবদুর রহিম ও সাইফুলের বিতর্কিত কর্মকান্ড নিয়ে দলের মধ্যে আগে থেকেই বেশ কানাগুসা ছিল। তাদের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বী দলের সাথে যোগসাজসের প্রামাণ্য অভিযোগ ছিল। তারা প্রতিদ্বন্দ্বী দলের এজেন্ট হিসাবে কাজ করতো বলে প্রচার রয়েছে। এবিষয়ে পেকুয়া উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি বাহদুুর শাহ চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদক ইতিমধ্যে বিবৃতি দিয়ে বিএনপি’র নেতাকর্মীদের যোগদান সংক্রান্ত খবর সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও কাল্পনিক বলে জানিয়েছেন। এ ধরনের ভূঁয়া খবরে কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য বিএনপি নেতাদ্বয় দলীয় সকল নেতাকর্মী, সমর্থকদের বিবৃতিতে অনুরোধ করেছেন।

সাধরণত যেসব উর্বর জমিতে ফলন বেশী হয়, সেসব জমিতে আাগাছাও বেশী জম্মায়। পেকুয়া রাজনৈতিকভাবে বিএনপি’র জন্য অসম্ভব একটি উর্বর এলাকা। বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসীদের চারণভূমি। রাজনৈতিক বোদ্ধারা পেকুয়া এলাকাকে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শের অনুসারীদের অভয়ারণ্য বলে থাকেন। এরকম বিএনপি নেতাকর্মী সমৃদ্ধ উর্বর এলাকায় বিতর্কিত ও বিচ্ছিন্ন ক’জন প্রতিদ্বন্দ্বীদের এজেন্ট হিসাবে নীরবে থাকাতেই পারে। যারা দলের জন্য রাজনৈতিক আগাছা। আবার সে আগাছা তো দল থেকে অনেক আগেই পরিষ্কার করা হয়েছে। সে দু’জন রাজনৈতিক আগাছা’কে পুঁজি করে আড়াই’শতাধিক বিএনপি নেতাকর্মীর কথিত আ’লীগে যোগদান একটি রাজনৈতিক বাহাস ছাড়া আর কিছু নয়। একটা দল যাদেরকে রাজনৈতিক আগাছা হিসাবে নিজেদের ভূমি থেকে উপড়ে ফেলে দিয়েছে-সেই ২ জন আগাছাকে আড়াই’শতাধিক হিসাবে আবিষ্কার করাটা নিঃসন্দেহে সেই দলের রাজনৈতিক দেওলিয়াপনার উজ্জ্বল প্রমাণ বহন করে। বিতর্কিত ও ভিন্নদলের এজেন্ট হিসাবে কাজকরা এদু’জন যোগদানকৃত লোক যেকোন সময় সেদলেও ফনা উঠিয়ে ছোবল মারতে পারে-এ আশংকাও অমূলক নয়। রাজনৈতিক উর্বর জমির এসব আগাছাকে নিজের জমি থেকে উপড়ে ফেলে স্থানীয় বিএনপি আগে থেকেই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছিল। এদু’জন রাজনৈতিক আগাছাকে সরানোর পর আবার বৈরী প্রতিদ্বন্দ্বী দলে কথিত যোগদান করায় বিএনপি আরো বেশী তৃপ্তির ঢেকুর গিলছে। সংসদ নির্বাচনের হাওয়া যখন থেকে বইছে, তখন থেকেই বিএনপি তথা বিশদলীয় জোট মনোনীত প্রার্থী এডভোকেট হাসিনা আহমেদের পক্ষে পুরো কক্সবাজার-১ আসনে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। চকরিয়া-পেকুয়ার রাজনীতির বরপুত্র সাবেক মন্ত্রী ও বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাহউদ্দিন আহামদের চাষকৃত বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের উর্বর ভূমিতে তাঁর সুযোগ্য সহধর্মিনী এডভোকেট হাসিনা আহমেদ যেদিকে যায়-সেদিকেই এখন হ্যামিলনের বাঁশিওয়ালার মতো মানুষ দলে দলে ছুটতে থাকে। অধম্য সাহসী এখানকার জনতার অপ্রতিরোধ্য স্রোত দেখে প্রতিদ্বন্দ্বীরা কৃত্রিমতা ও বিভিন্ন রাজনৈতিক নাটকের আশ্রয় নিলেও জনগণ সেটা সহজেই বুঝে ফেলে। সুতরাং বিএনপি’র উর্বর ভূমির উপড়ে ফেলা আগাছাকে প্রতিদ্বন্দ্বীরা তাঁদের ঘরে টেনে নিয়ে যে ভরসা করছে, খুশীতে আত্মহারা হয়েছে, লোকদেখানো আনুষ্ঠানিকতা করেছে-সেটা তাদের জন্য চলমান নির্বাচনে অরণ্যরোদন ছাড়া আর কিছুই নহে।

(লেখক: এডভোকেট, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট, ঢাকা।)

সর্বশেষ সংবাদ

রামুতে কে কত ভোট পেল

পেকুয়ায় জাহাঙ্গীর আলম , আজিজুল হক, উম্মে কুলছুম মিনু নির্বাচিত

রামুতে ১৬৪৭ ভোটে এগিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজল

রামুতে সোহেল সরওয়ার কাজল, সালাহ উদ্দিন , আফসানা জেসমিন পপি নির্বাচিত

উখিয়ায় জাহাঙ্গীর বিপুল ভোটে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পথে

রামু উপজেলা পরিষদ নির্বাচন: কার ভোট কত?

টেকনাফে বিরাট ব্যবধানে স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুল আলম এগিয়ে

আলীকদম সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট : চরমভাবে ব্যাহত পড়ালেখা

মিছিলে মিটিংয়ে হাজারে হাজার , ভোট কেন্দ্রে গুটি কয়েক ভোটার

শেখ হাসিনার প্রশংসনীয় নির্দেশনা শিক্ষাক্ষেত্রে!

আল্লামা তকী উসমানীর ওপর হামলায় মুসলিম উম্মাহ উৎকন্ঠিত -মাওলানা মোহছেন শরীফ

উখিয়ায় এক কেন্দ্রে কাস্টিং ৪৩ ভোট!

মহেশখালীর সুজন চট্টগ্রাম বিভাগীয় অনুর্ধ্ব-১৬ ক্রিকেট দলের ম্যানেজার নির্বাচিত

মালিতে ১৩৪ মুসলিম আদিবাসীকে গুলি করে হত্যা

ভোটগ্রহণ শেষ, তৃতীয় ধাপেও ভোটার উপস্থিতি ছিল কম

হিযবুতের প্রধান সমন্বয়ক মহিউদ্দিন খালাস, দু’জনের কারাদণ্ড

হজের খরচ কমেছে ২৪ হাজার ৪১০ টাকা

কানাডার ৫ বিশ্ববিদ্যালয়ে কম খরচে পড়ার সুযোগ

এখনই ইবাদতে মশগুল হও হে যুবকেরা

রামুতে আতঙ্কে ভোট দিতে যায়নি অনেকে