বার্তা পরিবেশক:

বিশেষ প্রতিবেদন নরসিংদী থেকে মোঃ জহিরঃ নরসিংদী জেলার শিবপুর উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন এবং একটি পৌরসভা নিয়ে এ আসন। বিএনপির সাবেক মহাসচিব জাতীয়নেতা প্রয়াত আব্দুল মান্নান ভূঁইয়ার শিবপুর উপজেলা নিয়ে গঠিত নরসিংদী-৩ আসনটি বিএনপির ভোট ব্যাংক হিসাবে পরিচিত। ১৯৭৩ সালের পর এ আসনে আওয়ামী লীগের কোনও প্রার্থী বিজয়ী হতে পারেননি। দীর্ঘ ৩৫ বছর পর আসনটি আওয়ামী লীগের দখলে আসে। তাই আগামী ৩০ ডিসেম্বর-২০১৮ অনুষ্ঠিতব্য একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ এ আসনটি ধরে রাখতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

নরসিংদী সদর উপজেলার চেয়ারম্যান মঞ্জুর এলাহী গত ২৮-১১-২০১৮ ইং তারিখ সকালে নরসিংদী জেলা প্রশাসক বরাবরে তাহার চেয়ারম্যান পদ হইতে পদ ত্যাগ পত্র দাখিল করেন এবং ঐ দিন বিকাল ৩টা ৪৫ মিনিটে তিনি নরসিংদী-৩ আসনে (শিবপুর) উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে তাহার আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির পক্ষে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত তাহার পদ ত্যাগ পত্র গ্রহনের গেজেট প্রকাশ হয় নাই। তাহা সত্বে ও নরসিংদী রিটানিং অফিসার আইন থাকা সত্বে অজ্ঞাত কারনে তাহার মনোনয়ন পত্রটি বাতিল ঘোষিত করেন নাই।

যদি ও সারা বাংলাদেশ সকল নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যানগণের একই কারনে মনোনয়ন পত্র বাতিল করিয়াছেন। কিন্তু উক্ত আসনের অন্যান্য প্রার্থীগন ও এ বিষয়ে কোন আপওি উথাপন করেন নাই। প্রকৃত পক্ষে আওয়ামীলীগের প্রার্থী পরবর্তীতে উক্ত মনোনয়ন পত্র আদালত যোগে রীট করিয়া মনোনয়ন পত্র বাতিল করিয়া বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ার জন্য কাজ করবেন। তাই শিবপুর বাসী মনে করে প্রত্যাহার পূর্বে মঞ্জুর এলাহীকে বিএনপি ধানের শীষ প্রতীকে চুড়ান্ত চিঠি দিলে তাদের কোন প্রার্থী থাকবে না।
অতঃপর আওয়ামীলীগের প্রার্থী একা নির্বাচিত হওয়ার পথ সুগম হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •