ডেস্ক নিউজ:
চলতি বছরের ৫ মে পারিবারিকভাবে বিয়ের কাবিন হয়েছিল আক্তার জাহান রুমা (২৮) ও কাজী মহসিন ফারুকের। এখনও আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে রুমাকে ঘরে তোলেননি ফারুক। মাঝে-মধ্যে দেখা হলেও সংসার জীবন শুরু হয়নি তাদের। কথা ছিল জানুয়ারিতে সম্পন্ন হবে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা, শুরু হবে সংসার। কিন্তু তার আগেই এক সড়ক দুর্ঘটনায় ঝরে গেলেন রুমা।
মঙ্গলবার (৪ ডিসেম্বর) ভোর ৫টার দিকে রাজধানীর তেজগাঁও থানার বিজয় সরণি মোড়ে সড়ক দুর্ঘটনায় আক্তার জাহান রুমা (২৮) নিহত হন। তিনি পেশায় একজন চিকিৎসক। রুমা চট্টগ্রামের হালিশহর এলাকার মো. আক্তারুজ্জামানের মেয়ে। সিলেটের ওসমানীনগর বার্টস আই হাসপাতালে (চক্ষু হাসপাতাল) কর্মরত ছিলেন।
নিহতের পরিবারের স্বজনেরা জানান, ঢাকার ধানমন্ডির আই হাসপাতালে রুমার একটি সাক্ষাৎকার ছিল। সেজন্য সিলেট থেকে রওয়ানা হয়ে ঢাকায় আসছিলেন। একই সঙ্গে তার স্বামী ডা. কাজী মহসিন ফারুক চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় আসছিলেন। সাক্ষাৎকারের সুবাদে দুজনের দেখা হওয়ার কথাও ছিল। কিন্তু তা আর হলো না।
রুমার মামা মো. লুৎফর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, এ বছরের গত ৫ মে, রুমা-মহসিনের কাবিন হয়েছিল। আগামী মাসেই তাদের বিয়ের অনুষ্ঠান করার কথা ছিল। কিন্তু সংসার শুরুর আগেই রুমার প্রাণ কেড়ে নিল ঘাতক বাস চালক।’
প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে নিহত রুমার স্বামী কাজী মহসিন ফারুক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মঙ্গলবার সকালে মহাখালী থেকে সিএনজি অটোরিকশায় চড়ে যাচ্ছিল রুমা। এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা মহাখালীগামী গ্রিনলাইন পরিবহনের একটি বাস সিএনজিকে ধাক্কা দেয়। এ ঘটনায় আক্তার জাহান রুমা এবং সিএনজিচালক গুরুতর আহত হন। পরে রুমাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •