cbn  

বিশেষ প্রতিবেদক:

মহেশখালী-কুতু্বদিয়ার সর্বস্তরের আপামর জনতার আগ্রহ ও সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের চাপের মুখে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার দুই আসন থেকে সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী হয়েছেন বলে জানান বিশিষ্ট পরিবেশ বিজ্ঞানী ড. আনসারুল করিম। তিনি আশা করেন মানুষের দোয়া ও ভালবাসা নিয়ে আগামী নির্বাচনে তিনি জয়ী হয়ে মানুষের আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটাতে পারবেন। এ জন্য তিনি সকলের দোয়া ও সহযোগীতা কামনা করেন। দেশের খ্যাতনামা পরিবেশ বিজ্ঞানী ড. আনচারুল করিম দীর্ঘ দিন থেকে বিশ্ব জলবায়ু পরিবর্তন সহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বাংলাদেশের মঙ্গলের জন্য নানা ভূমিকা রেখে এসেছিলেন। একজন আর্ন্তজাতিক খ্যাতি সম্পন্ন পরিবেশ বিজ্ঞানী হিসেবে তিনি সারা দেশের উন্নয়নের জন্য নানা অবদান রেখে চলেছেন। একজন সম্মানিত মিডিয়া ব্যক্তিত্ব বা টিভি ব্যক্তিত্ত্ব হিসেবে দেশে ও বিদেশে তার খ্যাতি রয়েছে। দেশের বিভিন্ন টেলিভিশনের টকশোতে তার দেয়া বক্তব্য গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করা হয়। একই সাথে তিনি গত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-০২ (মহেশখালী-কুতুবদিয়া) আসন থেকে মহাজোট তথা আওয়ামী লীগের মনোনিত প্রার্থী ছিলেন। সেবার মহেশখালী-কুতুবদিয়ার মানুষ তাকে বিপুল ভোটে এগিয়ে রাখলেও বিশেষ কারণে সমান্য ভোটের ব্যবধানে তিনি হেরে যান। এই নির্বাচনে তাকে মহেশখালী-কুতুবদিয়ার মানুষ যে সম্মান দেখিয়েছেন তা তিনি গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।

ড. আনচারুল করিম জানান, এবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তাকে প্রার্থী হওয়ার জন্য মহেশখালী-কুতুবদিয়ার সর্বস্তরের আপামর জনতা তাকে নানা ভাবে পরামর্শ দিয়ে আসছিলেন। বলতে গেলে তারা তাকে এক প্রকারের জোর করছিল যেন এবার নির্বাচনে তিনি এ আসন থেকে এমপি প্রার্থী হন এবং তাকে ভোট দিয়ে মানুষ যেন পছন্দের যোগ্য প্রার্থীকে বিজয়ী করে এমপি হিসেবে সংসদে পাঠাতে পারেন। ফলে তিনি বিগত দীর্ঘ সময় ধরে তার নির্বাচনি এলাকা মহেশখালী-কুতুবদিয়ায় ব্যপক গণসংযোগ করেন। এসময় তিনি সর্বস্তরের নারী-পুরুষ ও আপামর জনতার ব্যপক সাড়া পান। একাদশ জাতীয় সংসদের নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর মহেশখালী-কুতুবদিয়ার সর্বস্তরের নেতাকর্মী ও এলাকার ভোটাররা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্য জোর চাপ সৃষ্টি করেন এবং একপর্যায়ে এটি এ অঞ্চলের গণমানুষের প্রাণের দাবী হয়ে দাঁড়ায়। ফলে বিশিষ্টি পরিবেশ বিজ্ঞানী ড. আনচারুল করিম মানুষের এমন ভালবাসার প্রতিদান হিসেবে সবার সাথে পরামর্শ করে এবার কক্সবাজার-২ (মহেশখালী-কুতুবদিয়া) আসন থেকে জাতীয় সংসদ নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নেন। তার এ পাহাড় সমান জনপ্রিয়তাকে মূল্যয়ন করে তাকে গণফ্রন্ট ( মাছ মার্কা) থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করার পর সর্বস্তরের জনতা ও মহেশখালী-কুতুবদিয়ার জনপ্রিয় নেতাদের উপস্থিতে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কাছে গতকাল অনুষ্ঠানিক ভাবে মনোনয়নপত্র জমা দেন। তার নির্বাচনী প্রতীক ‘মাছ’। কক্সবাজারের দ্বীপাঞ্চল মহেশখালী-কুতুবদিয়ার সন্তান ড. আনচারুল করিম সকলের আন্তরিক সহযোগীতা কামনা করেছেন। তিনি মহেশখালী-কুতুবদিয়ার সর্বস্তরের আপামর জনতার আন্তরিক দোয়া ও ভালবাসা কামনা করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •