cbn  

ইমাম খাইর, সিবিএনঃ
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী মাস্টার এম এ মনজুর।
২৮ নভেম্বর বিকালে জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং অফিসার মোঃ কামাল হোসেনের হাতে তিনি মনোনয়ন জমা দেন।
এসময় দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কক্সবাজার ২ আসনের জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী আলহাজ্জ্ব মোহাম্মদ মোহিবুল্লাহ, কক্সবাজার সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি, মেহেরুজ্জামান, কক্সবাজার জেলা জাতীয় ছাত্র সমাজের সভাপতি সুলতান মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক বেলাল উদ্দিন, টেকনাফ উপজেলা জাতীয় ছাত্র সমাজের সাবেক সভাপতি মুহাম্মাদ আব্দুল ওয়াজেদ, জাতীয় পার্টি বাহারছড়া ইউনিয়ন সাবেক সভাপতি নুরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক  আব্দুল জাব্বার, বাহারছড়া জাতীয় ছাত্র সমাজের সভাপতি ওসমান সরওয়ার, সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক, জাতীয় পার্টি বাহারছড়া ১ নং ওয়ার্ড সাধারণ সম্পাদক আহম্মদ উল্লাহ, ৩ নং ওয়ার্ড সহসভাপতি মোঃ ফরিদ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ, ৬ নং ওয়ার্ড সভাপতি শাকের পাঠান প্রমুখ।
মাস্টার এম.এ মনজুর পেশাগত জীবনে একজন স্বনামধন্য শিক্ষক। পাশাপাশি রাজনীতি ও সামাজিক কর্মের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত।
তিনি ১৯৮৪ সালে নতুন বাংলা ছাত্র সামাজের কক্সবাজার কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। সেই থেকে বর্তমান সময়কাল পর্যন্ত জাতীয় পার্টির রাজনীতির সাথে সক্রিয়। দীর্ঘ ৩৪ বছরের রাজনৈতিক জীবনে তিনি জেলা, উপজেলার বিভিন্ন পদপদবীতে ছিলেন। এলাকাবাসী তাকে নির্লোভ ও পরোপকারী হিসেবে চেনে।
মাস্টার এম.এ মনজুর টেকনাফ উপজেলার প্রাচীন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শামলাপুর উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, স্থানীয় বেগম লাইলা নূর আদর্শ বালিকা দাখিল মাদরাসা ও আল আরাফাহ মডেল এাকডেমির প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক।
টেকনাফের উপকূলীয় ইউনিয়ন শামলাপুর গ্রামকে শিক্ষার আলোয় আলোকিত করতে নিজের মেধা, মনন, সময়, শ্রম ও অর্থ ব্যয় করে চলেছেন মাস্টার মনজুর।
তিনি জেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও টেকনাফ উপজেলা সভাপতি, উপকূলীয় উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সম্পাদক, বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির আজীবন সদস্য।
এছাড়া বিভিন্ন শিক্ষা, সমাজসেবামূলক প্রতিষ্ঠানের সাথে যুক্ত আছেন মাস্টার এম.এ মনজুর।
তিনি সীমান্তবর্তী উপজেলায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে মাদকের অভিশাপ থেকে মুক্ত করতে কার্যকর পদক্ষেপ নেবেন বলে জানান। সেই সাথে তার সংসদীয় আসনকে সারাদেশের জন্য একটি মডেল আসন হিসেবে পরিণত করতে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •