cbn  

শাহেদ মিজান, সিবিএন:
কক্সবাজারের ১নং মর্যাদাপূর্ণ আসন কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসন। রোববার জেলার চার আসনের মধ্যে তিন আসনে সরকারি দল আওয়ামী লীগ প্রার্থী চূড়ান্ত করে তাদের হাতে মনোয়নপত্র তুলে দিয়েছে। কিন্তু শেষ মুহূর্তে এসে ঝুলে যায় কক্সবাজার-৩ আসন। এই আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল মনোনয়ন পাওয়ার কথা থাকলেও আকস্মিক জাতীয় পার্টিকে এই আসন ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় আওয়ামী লীগ। তার অংশ হিসেবে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দীন বাবলুর চট্টগ্রাম-৯ আসনটি আওয়ামী লীগের মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলকে দিয়ে কক্সবাজার- আসনটি জিয়াউদ্দীন বাবুলকে দেয়ার ঘোষণা দেয় আওয়ামী লীগ। তবে তিনি এই আসনে নির্বাচন করতে অনীহা প্রকাশ করায় চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে ঝুলে আছে আসনটি। তবে আজ একটা সিদ্ধান্ত হতে পারে জানা গেছে।

একাধিক সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে, এই আসনে নির্বাচন করতে অনীহা প্রকাশ করেছে জিয়াউদ্দীন বাবলু। তাই শেষ পর্যন্ত তাকেও দেয়ার ব্যাপারে চূড়ান্ত নিতে পারেনি আওয়ামী লীগ। এই নিয়ে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির কথা চালাচালি হয়েছে বেশ! অন্যদিকে সাইমুম সরওয়ার কমলকে মনোনয়ন না দেয়ায় তার সমর্থকেরা ক্ষোভে ফেটে পড়েছে। এতে ক্ষুব্ধ সমর্থকেরা গতকাল রোববার কক্সবাজার ও রামুর বিভিন্ন স্থানে কলাগাছ নিয়ে বিক্ষোভ করেছে। একই সাথে জিয়া উদ্দীন বাবলুকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে কমলকে মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানান।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, জিয়া উদ্দীন বাবুল কক্সবাজার-৩ আসনে নির্বাচন করতে অনীহা প্রকাশ করায় আওয়ামী বিষয়টি নিয়ে ভাবছে। তবে গতকাল রোববার পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। তবে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে আজ সোমবার আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারক মহল বৈঠকে বসছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। বৈঠকে জোটের আসন ভাগাভাগির সমতার জন্য জিয়াউদ্দীন বাবলুকে এই আসনে শেষ পর্যন্ত নির্বাচন করানো চেষ্টা করা হতে পারে। তাতে না হলে বিকল্প সিদ্ধান্ত হতে পারে।

সূত্র মতে, শেষ পর্যন্ত জিয়া উদ্দীন বাবলু এই আসনে নির্বাচন করতে অনাগ্রহ প্রকাশ করলে আওয়ামী লীগ নিজ দলে প্রার্থীর জন্য এই আসন চূড়ান্ত করতে পারে। ফলে সাইমুম সরওয়ার কমল এই আসনে মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা খুব বেশি। এছড়াও কানিজ ফাতেমা ও নজিবুল ইসলামও তালিকায় রয়েছে বলে আভাস পাওয়া গেছে। তবে শেষ পর্যন্ত জাতীয় পার্টির জিয়াউদ্দীন বাবুল কি করছে সেটাই এখন দেখার বিষয়। পূর্ণাঙ্গ সিদ্ধান্ত জানার জন্য অপেক্ষা করতে হবে!

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •