cbn  

সিবিএন ডেস্ক:
আলোচিত সেনা কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী দুই দলের মনোনয়ন কিনেছেন। বুধবার তার পক্ষে ভাতিজা আব্দুল্লাহ আল মিজান বনানী জাতীয় পার্টির অফিস থেকে মনোনয়ন ফরম নেন।

এর আগে ১১ নভেম্বর আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম নেন সাবেক এই সেনা কর্মকর্তা। দুইটি মনোনয়ন ফরমই ফেনী-৩ আসন থেকে নিজের প্রার্থীতা দেখিয়ে তোলা হয়েছে।

এ বিষয়ে লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাসুদ উদ্দন চৌধুরীর মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করেও তার কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারি তখনকার তত্ত্বাবধায়ক সরকার দায়িত্ব নেয়ার সময় সাভারের নবম পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ছিলেন মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী। ওই বছরই লেফটেন্যান্ট জেনারেল হিসেবে পদোন্নতি পান তিনি। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় দেশের দুর্নীতি-অনিয়ম দূর করতে ‘গুরুতর অপরাধ দমন সংক্রান্ত জাতীয় কমিটি’ গঠন করা হয়। লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরীকে এ কমিটির প্রধান সমন্বয়ক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। দুই বছর বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করে গুরুতর অপরাধ দমন সংক্রান্ত জাতীয় কমিটি। এতে নেতৃত্ব দেন তিনি।

২০০৮ সালের ২ জুন মাসুদ উদ্দিন চৌধুরীকে ডিফেন্স কলেজের কমান্ড্যান্ট পদে বদলি করা হয়। ৮ জুন তার চাকরি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত করা হয়। একই বছরের ২ সেপ্টেম্বর অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশের হাইকমিশনার হিসেবে নিয়োগ পান তিনি। ওই বছরের নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন।

লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরীর চাকরির বয়সসীমা শেষ হয় ২০১১ সালের ২৯ জুন। এরপর প্রথমে তিন মাস করে দুই দফায় তার চাকরির মেয়াদ বাড়ানো হয়। পরবর্তী সময়ে আরো দুই দফায় এক বছর তার চাকরির মেয়াদ বাড়ে। ২০১৪ সালে অবসরে যান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •