cbn  

সিবিএন ডেস্ক:

রাজধানীর নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, যারা পুলিশ সদস্যদের হত্যা করতে চেয়েছিল, পুলিশের দুটি গাড়ি পুড়িয়েছে, একটি এপিসি আংশিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে, তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই মামলা করা হবে। ভিডিও ফুটেজ দেখে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

সংঘর্ষে আহত পুলিশ সদস্যদের দেখতে বুধবার সন্ধ্যায় রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স হাসপাতালে গিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পাঁচজন অফিসার ও দুজন আনসারসহ মোট ২৩ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। আহতদের অবস্থা গুরুতর না হলেও তাদের দেখে সহজেই বোঝা যায় প্রাণনাশের জন্য তাদের ওপর হামলা করা হয়েছে। তাদের মাথায় এবং পায়ে লাঠি ও ইট দিয়ে আঘাত করেছিল হামলাকারীরা।

police

তিনি বলেন, বিএনপি প্ল্যান করে পুলিশ সদস্যদের ওপর হামলা করেছে। তাদের (পুলিশের) প্রাণনাশ করতে চেয়েছিল। যাতে দেশে একটি ভীতিকর পরিবেশের সৃষ্টি হয় এবং নির্বাচন বানচাল হয়ে যায়। তারা একটি অশুভ উদ্দেশ্য নিয়েই পুলিশের ওপর এ হামলা করেছে।

এ সময় উপস্থিত ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলেন, বিনা উসকানিতে পুলিশের ওপর বিএনপির নেতাকর্মীরা হামলা করেছে। ঘটনার একপর্যায়ে আমি বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে দুবার ফোন করি, তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

পরে তিনি আমাকে ফোন করেন, তখন আমি তাকে বলি স্যার, আপনারা উৎসবমুখর পরিবেশে মনোনয়নপত্র বিক্রি করেন, সমস্যা নেই। কিন্তু আমার লোকজনের ওপর কেন হামলা করা হলো। তখন আমি তাকে আরও বলি, এ ঘটনায় যারা জড়িত তাদের কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না।

police

উল্লেখ্য, দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহের মধ্যেই বুধবার ঢাকার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে দলটির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়।

সংঘর্ষে পুলিশের একটি পিকআপ ভ্যানসহ দুটি গাড়ি জ্বালিয়ে দেয়া হয়। সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নির্দিষ্ট দূরত্বে অবস্থান নিয়ে টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পুলিশ।

অন্যদিকে, নয়াপল্টন কার্যালয়ের সামনে বিক্ষিপ্ত মিছিল করেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। জ্বালিয়ে দেয়া পুলিশের পিকআপ ভ্যানটির নম্বর ২৩১১। এসি, মতিঝিল গাড়িটি ব্যবহার করতেন বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পুলিশের পিকআপ ভ্যানটি জ্বালিয়ে দেয়া ছাড়াও বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। একটি ককটেল বিস্ফোরণের শব্দও শোনা যায়। সংঘর্ষে নারীসহ বেশ কয়েকজন আহত হন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •