মোঃ নিজাম উদ্দিন, চকরিয়া:
মহাসড়ক কিনারায় ভাসমান দোকান প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী স্টেশন মসজিদের সীমানা দেয়াল ঘেঁষে রয়েছে বেশকিছু ভাসমান দোকান।
এ স্থানে যাত্রীরা যানবাহনে উঠানামা করতে নিহতের ঘটনাসহ বারেবারে দুর্ঘটনা ঘটছে। ইতিপূর্বে একাধিক দুর্ঘটনা ও হতাহতের পর স্থানীয় লোকজন এসব স্থাপনা উচ্ছেদ করে দেয়। বিগত সময়ের মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ রুহুল আমিনের অভিযানে এসব স্থাপনা উচ্ছেদ করে দিলেও বর্তমানে ভাসমান দোকানগুলো পুনঃস্থাপন করা হয়।
গতকাল খুটাখালী বাজারের এক কুলিং কর্নার দোকানদার অল্পের জন্য বড় দুর্ঘটনা থেকে বেঁচে গেলেন ওই স্থানে। এখানে বিগত বছরের আগষ্টে যাত্রী উঠানামা করতে গিয়ে মাইক্রোবাস চাপায় স্থানীয় পিয়াইজ্জাকাটা এলাকার মোঃ জুনাইদ (৩০) নামের এক মিস্ত্রী নিহত হয়। ওসময় গুরুতর আহত হয় শিশু ও নারীসহ আরো দুই পথচারী। এরপরেও বিভিন্ন সময় এ ভাসমান দোকানের কারণে পথচারী দুর্ভোগসহ ছোটবড় দুর্ঘটনার উদাহরণ রয়েছে। যেকোন সময় আরো বড় ধরনের দুর্ঘটনার সম্ভাবনা বলে দাবী করছেন সচেতন লোকজন।
এ ব্যপারে খুটাখালী ইউপি চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুর রহমান বলেন, বিষয়টি অবগত হলাম। দেখা যাক এটি নিয়ে কি ব্যবস্থা করা যায়!
মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক আলমগির হোসেন বলেন, জনগণের সমস্যা হয় এমনকিছু মহাসড়কে থাকতে পরবে না। বিষয়টি দেখে ব্যবস্থা নেবেন বলেও তিনি জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •