আব্দুস সালাম, টেকনাফ:
 আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ঘোষণা হওয়ায় কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্তে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) কড়া নজরদারী বেড়েছে।
  এ সীমান্ত এলাকা ইয়াবার উৎস ভুমি হিসেবে পরিচিত। ফলে এখানে যাতে আসন্ন নির্বাচনে যাতে মাদক ব্যবসায়ীদের ইয়াবার টাকা (কালো টাকা) ব্যবহার করতে না পারে, কোন স্বার্থনেস্বীমহল স্বাভাবিক পরিস্থিতিকে অস্তিতিশীল করতে না পারে, সেজন্য শনিবার বিকাল থেকে টেকনাফে র‌্যাবের টহল জোরদার করা হয়েছে। এ টহলে নেতৃত্ব দিচ্ছেন র‌্যাব-৭ টেকনাফ ক্যাম্প-১ এর ইনচার্জ লেফটেন্যান্ট মির্জা শাহেদ মাহাতাব এক্স (বিএন) ও সহকারি কমান্ডার এএসপি মোহাম্মদ শাহ আলম।
র‌্যাব-৭ টেকনাফ ক্যাম্প-১ এর ইনচার্জ লেফটেন্যান্ট মির্জা শাহেদ মাহাতাব বলেন, ‘টেকনাফ সীমান্তে মাদকের প্রভাবটা বেশি, ফলে মাদক ব্যবসায়ীরা যাতে আসন্ন নির্বাচনে কালো টাকার প্রভাব ফেলতে না পারে র‌্যাবের বিশেষ টহল জোরদার রয়েছে। র‌্যাবে ৬টি ক্যাম্পের ৬টি গাড়ি নিয়ে টেকনাফ পৌর শহর ও সীমান্তের বিভিন্ন এলাকায় টহল দিয়ে যাচ্ছে। র‌্যাব হেড কোয়াটারের নির্দেশে সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হওয়ার পর থেকে নির্বাচন পর্যন্ত এ টহল চলমান থাকবে।
লেফটেন্যান্ট মির্জা শাহেদ মাহাতাব আরও বলেন, এই সীমান্তে বেশিরভাগ মানুষ ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত রয়েছে। এছাড়া কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনের সুন্দর স্বাভাবিক রাজনৈতিক পরিবেশকে স্বার্থনেস্বী মহল অস্থিতিশীল করার সুযোগ না পায় সেজন্য র‌্যাবের কড়া নজরদারীর মাধ্যমে সর্তক অবস্থানে রয়েছে।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •