শাহীন মাহমুদ রাসেল:
কক্সবাজারের সর্বত্র মোবাইলে চলছে জমজমাট লুডু জুয়া। এতে করে বিপথগামী হচ্ছে ছাত্র ও যুবসমাজসহ নানা পেশর মানুষ। কম সময়ে মোবাইলে লুডু জুয়া জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। জেলার প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে শুরু করে শহর অঞ্চলে এ জুয়ার ভয়াবহ বিস্তার ঘটেছে। যা কোন ভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে ছোট-বড় দোকানে, খেলার মাঠে, স্কুল মাঠে বা ক্লাব ঘরে জমজমাট ভাবে চলছে লুডু জুয়া। জমজমাট এই লুডু জুয়ায় ছাত্র ও যুব সমাজ নষ্টের পথে যাচ্ছে বলে মনে করছেন সচেতন নাগরিকরা। তারা যুব সমাজ বিপথগামীতা রোধে দ্রুত এসব জুয়া বন্ধের আহবান জানান।

সচেতন এক ব্যক্তি বলেন, মোবাইল জুয়া বন্ধে জনসচেতনা বাড়াতে হবে। সবাই যার যার জায়গা থেকে এটার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ছাত্র আব্দুল্লাহ আল মানুন বলেন, আমাদের এলাকার সিএনজি চালকরা লুডু খেলার নামে ভয়াবহ জুয়া’য় আসক্ত হয়ে পড়েছে, কোনরকম একটা রিজার্ভ ভাড়া পেলে জুয়ার টাকা জোগাড় করতে পারলেই সিএনজি অটোরিকশা দাঁড়িয়ে রেখে সারাদিন মোবাইলে লুডু খেলে। জিজ্ঞেস করলে রিজার্ভ ছাড়া একটা সিএনজিও যায়না, কারণ তারা লুডু খেলার আড়ালে জুয়ার আখড়া নিয়ে ব্যাস্ত থাকে, যাত্রীরা চরম ভোগান্তিতে পড়ে। প্রশাসনের হস্তক্ষেপ জরুরী বলে মনে করেন।

কক্সবাজারের বিশিস্ট সমাজবেক খান আল আমিন বলেন, জেলায় মোবাইলে লুডু খেলার নামে জুয়া খেলা চলে। এটা বন্ধে প্রশাসনের সহযোগিতা জরুরি।

এ ব্যাপারে সদরের ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সুলতান জানান, জুয়া খেলা অপরাধ। মোবাইল জুয়ারুদের শনাক্ত করা কঠিন। সচেতনতা বাড়াতে হবে,অবিভাবকদের নজরদারির প্রয়োজন। এটা বন্ধে তথ্য দিয়ে প্রশাসনকে সহায়তার আহবান জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •