ডেস্ক নিউজ:
নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল সম্পর্কে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জামায়াতে ইসলামী। দলটির সেক্রেটারি জেনারেল ডা: শফিকুর রহমান গতকাল এক বিবৃতিতে বলেন, দেশের জনগণের প্রত্যাশা ছিল নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদের একটি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টি হবে; কিন্তু সরকার তা না করে বিরোধী রাজনৈতিক দল ও জনগণের দাবি উপেক্ষা করে তার আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশনকে দিয়ে তড়িঘড়ি করে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করিয়ে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের পথ রুদ্ধ করল। এতে দেশের সব বিরোধী রাজনৈতিক দল ও জনগণের সাথে আমরাও গভীরভাবে উদ্বিগ্ন এবং শঙ্কিত। তফসিল ঘোষণা করে বর্তমান নির্বাচন কমিশন প্রমাণ করেছে সরকারের ছকের বাইরে যাওয়ার কোনো ক্ষমতা তাদের নেই।

তিনি বলেন, নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য করতে জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে যৌক্তিক ৮-দফা দাবি পেশ করেছিলাম। অনুরূপ দাবিদাওয়া গুরুত্বপূর্ণ সব রাজনৈতিক দল এবং জোট থেকেও পেশ করা হয়েছিল। যৌক্তিক এসব দাবির প্রতি কোনো ধরনের সম্মান প্রদর্শন না করে উল্টো বেপরোয়াভাবে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। তাতে বিদ্যমান রাজনৈতিক সঙ্কট আরো জটিল আকার ধারণ করবে।

জামায়াত সেক্রেটারি বলেন, এক দিকে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা, অন্য দিকে বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের গণহারে গ্রেফতার করে তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা-গায়েবি মামলা দিয়ে সরকার ৫ জানুয়ারির চেয়ে আরেকটি নিকৃষ্ট নির্বাচনের পাঁয়তারা করছে। এ ষড়যন্ত্রের পরিণতি কারো জন্য কল্যাণকর হবে না।

তিনি আরো বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের পরিণতি দেশের কারো জন্যই শুভ হয়নি। এবারেও ওই ধরনের পাতানো একতরফা ব্যালট ডাকাতির প্রহসনের নির্বাচনের পরিণতি আরো খারাপ হতে বাধ্য। অতি অল্প সময়ের মধ্যে ঝড়ের বেগে নির্বাচনের যে তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে, তাতেই প্রমাণ হয় অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের কোনো ইচ্ছা সরকার এবং তার আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশনের নেই। এত অল্প সময়ের ব্যবধানে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন করা সম্ভব নয়।
তাই বিরোধী দল ও জনগণের দাবির প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, অন্যথায় তার দায়দায়িত্ব সরকারকেই বহন করতে হবে।

প্রতিবাদ : একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকার শেষ পৃষ্ঠায় ‘জঙ্গীবাদে জামায়াতের কৃষিবিদ ব্লক’ শিরোনামে গতকাল প্রকাশিত রিপোর্টের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় প্রচার বিভাগের সেক্রেটারি অধ্যাপক মো: তাসনীম আলম এক বিবৃতিতে বলেন, পত্রিকায় প্রকাশিত রিপোর্টে জঙ্গিবাদে জামায়াতের অর্থায়নের যে কথা লেখা হয়েছে, তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন, অসত্য। আমি এ রিপোর্টের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। বিজ্ঞপ্তি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •