খাশোগি হত্যায় ১৫, আলামত মুছতে ১১ জনকে পাঠায় সৌদি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যার পর আলামত মুছে ফেলতে ইস্তাম্বুলে একজন কেমিস্ট ও একজন টক্সিকোলজি বিশেষজ্ঞ-সহ ১১ সদস্যের এক প্রতিনিধিদল তুরস্কে পাঠায় সৌদি আরব। সোমবার তুরস্কের সরকারপন্থী দৈনিক ডেইলি সাবাহ এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

রাজপরিবারের উপদেষ্টা থেকে সমালোচক বনে যাওয়া এ সাংবাদিককে ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে হত্যার ঘটনায় বিশ্বজুড়ে ব্যাপক সমালোচনা ও নিন্দার ঝড় উঠেছে। জামাল খাশোগিকে হত্যার ভয়ঙ্কর তথ্য প্রকাশ করেছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান বলেছেন, খাশোগিকে পরিকল্পিত উপায়ে হত্যা করেছে সৌদি।

এরদোয়ানের এই দাবির সত্যতাও মিলেছে। রিয়াদের কর্মকর্তারা স্বীকার করেছেন, সাংবাদিক খাশোগি হত্যা ছিল পরিকল্পিত। তবে ৫৯ বছর বয়সী এই সাংবাদিককে হত্যার পর তার মরদেহ কোথায় রাখা হয়েছে সেব্যাপারে কোনো তথ্য দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে সৌদি।

ডেইলি সাবাহর তথ্য বলছে, মার্কিন দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্টের কনট্রিবিউটর জামাল খাশোগি বিয়ের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহ করতে সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশের পর নিখোঁজ হন। তার নিখোঁজের ৯ দিন পর গত ১১ অক্টোবর ১১ সদস্যের এক প্রতিনিধি দল তুরস্কে পাঠায় সৌদি আরব। কনস্যুলেটের ভেতরে খাশোগিকে হত্যার আলামত মুছে ফেলতে এই প্রতিনিধি দলকে ইস্তাম্বুলে পাঠানো হয়। এর আগে রিয়াদ থেকে ১৫ সদস্যের কিলিং স্কোয়াড পাঠিয়ে খাশোগিকে হত্যা করা হয় বলে দাবি করে তুরস্ক।

তুরস্কের এই দৈনিক বলছে, কেমিস্ট আহমাদ আব্দুল আজিজ আলজানোবি ও টক্সিকোলজি বিশেষজ্ঞ খালেদ ইয়াহিয়া আল জাহরানি তথাকথিত ওই ১১ সদস্যের দলে ছিলেন। ১১ অক্টোবর থেকে ১৭ অক্টোবর পর্যন্ত প্রত্যেকদিন কনস্যুলেটে যান এই সদস্যরা। পরে ২০ অক্টোবর তুরস্ক থেকে সৌদিতে পাড়ি জমান তারা।

এমনকি ১৫ অক্টোবরের আগে পর্যন্ত কনস্যুলেট ভবনে তল্লাশি অভিযান চালাতে তুরস্কের পুলিশকে অনুমতি দেয়নি সৌদি আরব। গত সপ্তাহে তুরস্তের প্রধান প্রসিকিউটর বলেছেন, কনস্যুলেটে প্রবেশের পরপরই খাশোগিকে হত্যা এবং সেখানেই তার মরদেহ টুকরো টুকরো করা হয়।

এরদোয়ানের উপদেষ্টা ইয়াসিন আক্তে শুক্রবার এক নিবন্ধে ইঙ্গিত দিয়েছেন যে, খাশোগির মরদেহ সম্ভবত অ্যাসিডে ধ্বংস করা হয়েছে। এদিকে, খাশোগিকে খুন ও গ্রেফতারকৃত ১৮ সৌদির ব্যাপারে মূল প্রশ্নগুলোর জবাব না দেয়ায় রিয়াদ কর্তৃপক্ষকে অভিযুক্ত করেছেন প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। মার্কিন দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্টে লেখা এক উপসম্পাদকীয় তিনি এই অভিযোগ আনেন।

এরদোয়ান বলেছেন, সাংবাদিক খাশোগিকে হত্যার নির্দেশ এসেছে সৌদি সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে। তবে তিনি এক মুহূর্তের জন্যও বিশ্বাস করেন না যে, বাদশাহ সালমান এজন্য দায়ী।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রামের বিএনপি কার্যালয় পুলিশের কড়া পাহাড়া

মাওলানা আনোয়ারের জানাজা ও দাফন সম্পন্ন

বিএনপির মনোনয়নপত্র নিলেন আলমগীর ফরিদ ও শহীদুজ্জামান

বান্দরবান ৩০০নং আসনে মনোনয়ন নিয়ে বেসামাল বিএনপি

কলেরা টিকা পাবে আরো দু’লক্ষাধিক রোহিঙ্গা

নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করছে সরকার: ফখরুল

খালেদার দু’টি আসন পাচ্ছেন দুই পুত্রবধূ!

সেন্টমার্টিনে ২ লাখ ৩০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার

ডেসটিনির চেয়ারম্যানের ৩ বছর কারাদণ্ড

যশোরে বিদেশী পিস্তল ও ম্যাগজিনসহ যুবক আটক

বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস উপলক্ষে রাঙামাটিতে আলোচনা সভা

উখিয়ার কলেজছাত্রী হত্যাকারী সন্ত্রাসী কবিরের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

চকরিয়ায় গ্রাম আদালত বিষয়ক কর্মশালা

আলমগীর ফরিদের বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার

নয়াপল্টনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ

যুক্তরাষ্ট্রও রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের বিরোধী

গণভবনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা

এড. সালাহ উদ্দীন কক্সবাজার-৪ আসনে বিএনপি’র ফরম সংগ্রহ করলেন

প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ার কথা শুনে ক্যাম্প ছেড়ে পালানোর চেষ্টা রোহিঙ্গাদের

কারাবন্দির পাকস্থলিতে মিললো ৪০০ ইয়াবা