সংবাদ বিজ্ঞপ্তিঃ
কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন আহমদ সি.আই.পি. বলেছেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলার মাটিতে অতীতে কখনো ভোট ডাকাতির রাজনীতি করেননি। ভবিষ্যতে কাউকে প্রশ্রয় দিবেন না।
৩ নভেম্বর জেল হত্যা দিবস উপলক্ষে পেকুয়ায় আওয়ামী লীগ উন্নয়ন প্রচার পরিষদের উদ্যোগে স্থাণীয় চৌমুহনীতে আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনাব সিআইপি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোন বিতর্কিত ব্যক্তির পরিবর্তে পরিচ্ছন্ন ভাবমুর্তির নেতাকে মনোনয়ন দেবেন।
তিনি বলেন- ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট বঙ্গবন্ধুকে স্ব-পরিবারে হত্যার পর খন্দকার মোশতাক-জিয়া চক্র আওয়ামীলীগকে নিশ্চি‎ করে দেয়ার উদ্দেশ্যে ৩ নভেম্বর কারাভ্যন্তরে জাতীয় ৪ নেতাকে হত্যা করেছিল।
কিন্তু বাংলার কোটি মানুষের সমর্থনে আওয়ামীলীগ ৩ দফা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এসেছে এবং বাংলাদেশ হতে বিচারহীনতা সংস্কৃতিক দূর করছে। তিনি আগামী নির্বাচনে আবারো আওয়ামীলীগকে ক্ষমতায় বসাতে জনগণের সহযোগিতা কামনা করেন।
উন্নয়ন প্রচার পরিষদের সদস্য সচিব ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শহীদ উল্লাহ এ সভায় সভাপতিত্ব করেন।
এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতিবৃন্দ যথাক্রমে সাবেক পৌর প্রশাসক এড. আমজাদ হোসেন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করিম, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য এ.টি.এম. জিয়াউদ্দিন চৌধুরী, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপত সভাপতি এ.টি.এম. বক্তিয়ার উদ্দিন চৌধুরী, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক জামাল উদ্দিন জয়নাল, কক্সবাজার জেলা পরিষদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ যথাক্রমে কাজীউল ইনসান, মোঃ ইউনুস চৌধুরী, নজরুল ইসলাম সিকদার বাবুল, চকরিয়া উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি মাষ্টার মোহামমদ আলী, পেকুয়া উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি রশিদ আহামদ, আওয়ামীলীগ নেতা মফিজুর রহমান, নুরুল আবছার, আক্তার হোছাইন, শাহাদৎ হোছাইন, মোঃ জিয়াবুল, বাদশা মিঞা, নেজাম উদ্দিন, আবু তালেব, মাশুক আহামদ, আবু তালেব, শফিউল আলম, হুমায়ন কবির, মৌলভী ছাবের আহামদ, বশির আহামদ, মোক্তার আহামদ, সাইফুল ইসলাম ও ছাত্রলীগ নেতা ফয়সাল উদ্দিন এবং ফারুক আজাদ বক্তৃতা করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •