মোস্তফা কামালঃ

চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারার কৃতি সন্তান পুলিশ কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ নুরুল আমিন ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসায় শত চেষ্টা করেও অবশেষে সবাইকে শোকের সাগরে ভাসিয়ে চলে গেলেন না ফেরার দেশে । ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নালিল্লাহি রাজিউন।

শুক্রবার ২ নভেম্বর সন্ধ্যা ৬টা ৪০ মিনিটের সময় চট্টগ্রাম পার্ক ভিউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

শনিবার জুহুরের নামাজের পর ডুলাহাজারা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে জানাযার নামাজ শেষে তাদের সামাজিক করবস্থনে মরহুমের লাশ দাফন করা হয়। মরহুম নুরুল আমিন ডুলাহাজারা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড বৈরাগিরখীল গ্রামের মরহুম জাগের আহমদের ৩য় পুত্র। তিনি বিগত ১৯৯৮ সালে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে অফিসার পদে যোগদান করেছিলেন। চাকুরী জীবনে সৎ ও দক্ষতার সাথে দেশের বিভিন্নস্থানে স্বনামের সাথে অর্পিত দায়ীত্ব পালন করেছেন। সর্বশেষ তিনি বান্দরবান জেলায় পুলিশের গোয়ান্দা শাখা (ডি.এস.বি) পুলিশের ও.সি পদে দায়ীত্বে ছিলেন। ও.সি মরহুম নুরুল আমিনের চাচাতো ভাই ডাঃ মোঃ ফরিদুল হক জানান, নুরুল আমিন দীর্ঘদিনধরে লিভার ক্যান্সারে ভোগছিলেন। এই রোগের চিকিৎসা দেশে না হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে কয়েকবার দেশের বাইরেও নেওয়া হয়। কিন্তু এতে কোন উন্নতি হয়নি। এদিকে মরহুম নুরুল আমিনের অনুষ্ঠিত জানাযার নামাজে অংশ নিয়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, চকরিয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা রেজাউল করিম, চকরিয়া এস.পি সার্কেল কাজী মতিউল ইসলাম, লামা-আলীকদম ও নাইক্ষ্যংছড়ি থানার দায়ীত্বরত কর্মকর্তা (এস.পি সার্কেল) আবু সালাম চৌধুরী ও চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ও.সি) মোঃ বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী। বক্তারা মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান। অনুষ্ঠিত জানাযায় আলীকদম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ও.সি) ও চন্দ্রঘোনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ও.সি) মোঃ আশরাফ সহ সর্বস্থরের শত শত মুসল্লিগণ অংশগ্রহণ করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •