হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী :

সাজানো আদালত। সাজানো মামলা। আছে বাদী আর বিবাদী পক্ষের আইনজীবি। চলছে তুমুল যুক্তি-তর্ক। এভাবেই কক্সবাজার জেলায় প্রথমবারের মতো আয়োজিত জাতীয় মুট কোর্ট প্রতিযোগিতায় লড়েছে দেশের ১১টি বিশ^বিদ্যালয়ের ১৬টি দল। গতকাল শুক্রবার দিনব্যাপি কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করেন।

প্রতিযোগিতায় অংশ নেন- নর্থ সাউথ বিশ^বিদ্যালয়, ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি, ডেফোডিল ইউনিভার্সিটি, লিডিং ইউনিভার্সিটি, প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি, ষ্টেট ইউনিভার্সিটি, সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটি, বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি, ইউনিভার্সিটি অব চিটাগাং ও কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের শিক্ষার্থীরা। প্রতিযোগিতায় ফাইনালে অংশগ্রহন করেন নর্থ সাউথ বিশ^বিদ্যালয় এবং ষ্টেট ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা। সেখানে চ্যাম্পিয়ন হন- নর্থ সাউথ বিশ^বিদ্যালয়। এই প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠ মেমোরিয়াল এ্যাওয়ার্ড পেয়েছে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।

বিকেল সাড়ে ৫টায় পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি এসএম মুজিবুর রহমান। তিনি বলেন, বাংলা বা ইংরেজী যেভাবেই লিখুন, সবার প্রিয় একটি শব্দ আছে যা লিখতে লাগে মাত্র চারটি অক্ষরে। অথচ এর ব্যপ্তি সাগরের চেয়েও বিশাল। সমুদ্রসৈকতে নর্তন কূর্দনের জন্য নয়, একটি বিশেষ শব্দটির টানেই কক্সবাজার এসেছি। শব্দটি হচ্ছে ভালোবাসা। অনুষ্ঠানে ১১টি বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের যুক্তি-তর্ক শুনে আমি সত্যিই অভিভূত। মনে হচ্ছিল আমি হাই কোর্ট বেঞ্চে বসে বিচারকার্য পরিচালনা করছিলাম।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে প্রধান অতিথি বলেন, দেশের ইতিহাস পর্যালোচনা করলে দেখা যায়- বেশির ভাগ সময় আইনজীবিরাই দেশ শাসন করে আসছেন। এই জন্য তাঁদেরকে সমাজের প্রকৃত নেতা হিসাবে অবহিত করা হয়। এমন নেতা হতে হলে, তোমাদেরকেও যোগ্যতা অর্জন করতে হবে এবং এই যোগ্যতা অর্জনের মধ্য দিয়ে নিজেকে প্রতিষ্টা করা যাবে।

কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাষ্টিজের চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন আহমদ সিআইপি’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন- কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ খন্দকার হাসান মোহাম্মদ ফিরোজ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের সহকারী অধ্যাপক সাঈদ আহসান খালিদ, কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাষ্টিজের সাধারণ সম্পাদক লায়ন মো.মুজিবুর রহমান, ট্রেজারার অধ্যাপক আবদুল হামিদ, রেজিস্ট্রার নাজিম উদ্দিন সিদ্দীকী, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এএসএম সাইফুর রহমান, প্রক্টর রাজিদুল হক সুমন, আইন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহকারী অধ্যাপক আবু সুফিয়ান মোহাম্মদ তাজ উদ্দিন, দ্যা নেটওয়ার্ক ফর ইন্টারন্যাশনাল ল স্টুডেন্টস (নীলস)- এর সভাপতি ও আইন বিভাগের প্রভাষক নাসরিন সুলতানা, আইন বিভাগের কো-অর্ডিনেটর প্রভাষক মো. রাজিদুর রহমান, প্রভাষক সাদিয়া খানম, প্রভাষক জান্নাতুল কেয়া, সহকারি রেজিস্ট্রার কুতুব উদ্দিন প্রমূখ। অনুষ্ঠানে বিশ^বিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক-শিক্ষিকামন্ডলীসহ হাজারো শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

এ প্রসঙ্গে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহকারী অধ্যাপক আবু সুফিয়ান মোহাম্মদ তাজ উদ্দিন বলেন, কক্সবাজারের জন্য এটি অনেক বড় প্রাপ্তি। এ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে কক্সবাজারের শিক্ষার্থীরা আইন বিষয়ে লেখাপড়ায় আরও উৎসাহি হবে এবং তাঁরা যুক্তি-তর্কের মাধ্যমে সংকটময় বিভিন্ন আইনগত সমস্যার সমাধানের বিষয়ে স্বোচ্চার হবে।

এই প্রতিযোগিতায় মিডিয়ার পার্টনার হিসেবে রয়েছে কক্সবাজারে শীর্ষ অনলাইন নিউজপোর্টাল কক্সবাজার নিউজডটম-সিবিএন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •