cbn  

সিবিএন ডেস্ক:
মোনালিসা ভট্টাচারিয়া, ভারতীয় নাগরিক। তিনি তথ্য গোপন করে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন। পরে পার্বত্য জেলা বান্দরবান ভ্রমণের সময় গোয়েন্দাদের হাতে ধরা পড়েন।

শুক্রবার মোনালিসা ভট্টাচারিয়াকে চিম্বুক পাহাড়ের পর্যটন কেন্দ্র নীলগিরি থেকে আটক করা হয়।

গত এক সাপ্তাহে তথ্য গোপন করে বান্দরবান ভ্রমণের সময় এরকম আরো ৭ ভারতীয় নাগরিককে আটক করা হয়েছে।

তথ্য গোপন করে বিদেশিদের ভ্রমণ বেড়ে যাওয়ায় প্রশাসন চেক পোস্টগুলোতে তল্লাশিও বাড়িয়েছে।

পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার জানান, বান্দরবান শহরের প্রবেশদ্বার বান্দরবান- কেরানীরহাট সড়কের রেইছা ও রাঙ্গামাটি- কাপ্তাই সড়কের ডলুপাড়া এলাকায় দুটি চেক পোস্ট রয়েছে।

এসব চেকপোস্টে বান্দরবানে আসা বিদেশি নাগরিকদের বিষয়ে তথ্য যাচাই-বাছাই করা হয়। প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া কোনো বিদেশি নাগরিক পার্বত্য এলাকায় প্রবেশ করতে পারে না।

তিনি জানান, ভারতের বিশেষ করে পশ্চিবঙ্গের লোকজন বাংলা ভাষায় কথা বলায় তাদের বিষয়ে তথ্য যাচাই করা কষ্টকর। অনেক সময়ে তারা ঝামেলা এড়াতে চেক পোস্টগুলোতে তথ্য না দিয়েই পার্বত্য এলাকা ভ্রমণ করেন। এ বিষয়টি এখন প্রশাসনের নজরে এসেছে। সব চেক পোস্টগুলোতে এখন বাড়তি সতর্কতা নেয়া হয়েছে। অধিকতর যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। তবে গাড়ি তল্লাশি বা তথ্য যাচাই-বাছাই করার সময় সাধারণ মানুষ যাতে হয়রানির শিকার না হয় সেদিকে লক্ষ রাখা হচ্ছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ২০ অক্টোবর পর্যটন কেন্দ্র নীলগিরি থেকে ভারতের পশ্চিম বঙ্গের চব্বিশ পরগোনার মাজেদুল হক মন্ডল, একই এলাকার নজরুল হক মন্ডল, কলকাতার বিবি ফরিদা, একই এলাকার আসমিফ মন্ডল, আমিনা মন্ডল, মহিউদ্দিন মোল্লা ও সাহিল হোসাইনকে আটক করে সেনাবাহিনীর গোয়েন্দা সদস্যরা। পরে তাদের আটক করে পুলিশে হস্তান্তরের পর জেলার বাইরে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

তারা বাংলাদেশের কুষ্টিয়া জেলার বাসিন্দা ইমনুর রহমানের সাথে তথ্য গোপন করে বান্দরবানে বেড়াতে আসেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •