ডেস্ক নিউজ:
চট্টগ্রামের হাটহাজারীর আমানবাজার এলাকায় আবাসিক ভবনের গ্যাসলাইনে বিস্ফোরণের ঘটনায় দগ্ধ পাঁচজনের মধ্যে শিশু রাজিয়া সুলতানা মিম (১১) ও তামিম (৩) মারা গেছে। দগ্ধ বাকি তিনজনের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

বৃহস্পতিবার (১ নভেস্বর) ভোরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। চমেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক আলাউদ্দিন তালুকদার জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার (৩১ অক্টোবর) দিনগত রাত ৯টার দিকে আমানবাজার এলাকার হারুন ভবনের তৃতীয় তলায় গ্যাসের সঞ্চালন লাইনে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ সময় তিনজন শিশু ও দুইজন নারী দগ্ধ হন।

নিহত মিম ও তামিম ছাড়া বাকিরা হলেন- সনি বেগম (২৬), রুবি আক্তার (১৬) ও শিশু ইয়াসিন (১)। শিশু তামিম ও ইয়াসিন গৃহিণী সনি বেগমের সন্তান এবং শিশু রাজিয়া গৃহিণী রুবি আক্তারের সন্তান।

স্থানীয় সূত্র জানায়, আমানবাজার এলাকার হারুন ভবনের তৃতীয় তলায় ভাড়া থাকেন সনি বেগমের পরিবার। কয়েকদিনের জন্য তারা বেড়াতে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে বাসায় ফিরে রাতে রান্না জন্য চুলা জ্বালাতে গেলে গ্যাসের সঞ্চালন লাইনে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে তারা দগ্ধ হন।

স্থানীয়দের আশঙ্কা সনি বেগমের পরিবার বেশ কয়েকদিন বাড়িতে অনুপস্থিত থাকায় কোনোভাবে গ্যাসলাইন লিকেজ হয়ে রান্না ঘরে গ্যাস জমে গিয়েছিলে। রাতে চুলায় আগুন দিতে গেলে গ্যাসের সঞ্চালন লাইনে বিস্ফোরণ হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •