সংবাদদাতা:

পেকুয়া উপজেলায় যৌতুকের দাবিতে চার সন্তানের জননী স্ত্রীকে মারপিট করে গুরুতর আহত করে ঘর ছাড়া করলো নিজ স্বামী! এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ যৌতুক লোভী স্বামীর বিচার চেয়ে প্রশাসনের দ্বারে দ্বাওে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

গৃহবধূও অভিযোগ ও এলাকাবাসি সূত্রে জানা গেছে, পেকুয়া উপজেলার শিলখালী ইউনিয়নের মাঝের ঘোনা গ্রামের এনায়েত আলীর পুত্র কামাল হোসেনের সাথে একই উপজেলার মগনামা ইউপির মগঘোনা গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের কন্যা সাবিনা ইয়াসমিনের বিগত ২০০৯ ইংরেজীতে ইসলামী শরিয়া মোতাবেক সামাজিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের দাম্পত্য জীবনে দিদার (৮), রেশমী (৬), হ্যাপী (৩), বক্কর (৬ মাস) চার সন্তান-সন্ততি রয়েছে।

সাবিনা অভিযোগ করেছেন, বিয়ের পর থেকে প্রায় সময় তার স্বামী কামাল হোসেন যৌতুকের দাবিতে তাকে বিভিন্ন সময় নির্যাতন করে আসছিল। গত ১৩ অক্টোবর তাকে ব্যাপক মারধর করে এবং তার বাপের বাড়ি থেকে যৌতুক এনে দেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করে।

স্বামী কর্তৃক নির্যাতনের শিকার চার সন্তানের জননী সাবিনা ইয়াসমিন আরো জানায়, যৌতুকের জন্য দুই মাস আগেও তাকে কয়েক দফা মারধর করেছিলেন স্বামী কামাল হোসেন। পরে গত ১৪ অক্টোবর পেকুয়া সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে দুই চিকিৎসাধীন ছিলেন সাবিনা। এরপর পেকুয়া সরকারী হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সাবিনাকে রেফার করা কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে।

সবিনা অভিযোগ করে বলেন ‘অত্যাচার ও নির্যাতন চালিয়ে ঘর থেকে বের করে দিয়ে ক্রান্ত হননি যৌতুক লোভী স্বামী। বর্তমানে তাকে বিভিন্ন মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানীর হুমকি দিচ্ছে স্বামী কামাল হোসেন। তিনি এ ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তা কামনা করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •