লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা:
চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় ন্যায় বিচার পাওয়ার জন্য বাস্তচ্যুত মোস্তাক আহমদ নিজ দোকান ফিরে পাবার জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। গত ৯ সেপ্টেম্বর তিনি চট্টগ্রাম- ১৫ আসনের সংসদ সদস্য প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজাম উদ্দিন নদভী বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন। তিনি (এমপি) লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে জরুরী ভিত্তিতে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সুপারিশ করেন।

মোস্তাক আহমদ সাংবাদিকদের জানান, তিনি একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। তিনি লোহাগাড়ার বটতলী মোটর ষ্টেশনে দীর্ঘ ৪০ বছর বেকারী, কুলিং কর্ণারের ব্যবসা করে আসছিলেন। গত ২০১৬ সালের ৯ সেপ্টেম্বর রাতে রাজনৈতিক পৃষ্টপোষকতায় ফিল্মী স্টাইলে তার দোকান লুট করে একদল সশস্ত্র যুবক। এ নিয়ে মামলা- মোকদ্দমা হয়। তার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের মালিকানা প্রমাণিত হয় বলে প্রকাশ। কিন্তু অবৈধ দখলকারীরা দোকান ছাড়েনি। তারা জোরপূর্বক দোকান থেকে বের করে দেয় বলে মোস্তাক আহমদ অভিযোগ করেছেন। এ নিয়ে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।

মোস্তাক আহমদ আরো জানান, তিনি আজ নিঃস্ব অবস্থায় দিনাতিপাত করছেন। এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে বহুবার সালিশ বৈঠক হয়েছে। বিচার প্রার্থনা ও দোকান ফিরে পাওয়ার জন্য তিনি দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিস সূত্রে জানা যায়, অভিযোগের ভিত্তিতে উভয় পক্ষকে নোটিশ করা হয়েছে। এরমধ্যে দু’বার শুনানী হয়েছে। অভিযুক্ত মোঃ ইউনুছ, আবু তালেব, আবু ছালেহ ও ছৈয়দ আহমদ আগামী ৩১ অক্টোবর এই বিষয়ে শুনানীর জন্য সময় প্রার্থনা করেছেন। এ ব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অপরদিকে, অভিযুক্তরা সাংবাদিকদের কাছে দাবী করেছেন অভিযোগ ভিত্তিহীন। তারাও তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •