সিবিএন ডেস্ক:
ফেনসিডিল ও ৪৪ লাখ টাকাসহ গ্রেফতার চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার সোহেল রানা বিশ্বাসের সাতদিনের রিমান্ড চেয়েছে ভৈরব রেলওয়ে থানা পুলিশ। অপরদিকে, ঘটনার পরপরই তাকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে কারা অধিদফতর।
এ বিষয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের ভৈরব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল মজিদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘জেলার সোহেল রানার বিরুদ্ধে দুটি মামলা হয়েছে। একটি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন এবং অপরটি মানি লন্ডারিং আইনে। মামলা দুটির নম্বর যথাক্রমে ৯ ও ১০। তাকে মাদক মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কিশোরগঞ্জ জেলা আদালতে সাতদিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে। আদালত রিমান্ড মঞ্জুর করলে তাকে এ বিষয়ে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।’ মামলা দুটির বাদী ভৈরব রেলওয়ে থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আশরাফ উদ্দিন ভূঁইয়া।
অপরদিকে, কারা অধিদফতরের সহকারী কারা মহাপরিদর্শক (প্রশাসন) আব্দুল্লাহ আল মামুন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা গতকালই (শনিবার, ২৭ অক্টোবর) তাকে মৌখিকভাবে বহিষ্কার করেছি। চট্টগ্রামে ফোনে বিষয়টি জানানো হয়েছে। রবিবার (২৮ অক্টোবর) অফিসকালীন সময়ে তাকে বহিষ্কারের লিখিত আদেশ দেওয়া হবে। এছাড়া তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা প্রক্রিয়াধীন। আমরা রেলওয়ে পুলিশকে তদন্তে সহযোগিতা করছি।’
প্রসঙ্গত, শুক্রবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনে অভিযান চালিয়ে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার সোহেল রানা বিশ্বাসকে গ্রেফতার করে ভৈরব রেলওয়ে পুলিশ। এ সময় তার কাছ থেকে ১২ বোতল ফেনসিডিল, ৪৪ লাখ ৪৩ হাজার টাকা এবং এক কোটিরও বেশি টাকার বিভিন্ন ব্যাংকের চেক জব্দ করা হয়।
ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলায় তার বাড়ি। এছাড়া ময়মনসিংহের আরকে মিশন রোডেও একটি বাড়ি রয়েছে যা ভাড়া দেওয়া আছে। তার বাবা জিন্নাত আলী বিশ্বাস ধোবাউড়া উপজেলার একটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •