বিশেষ প্রতিবেদক:

জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ যেমন বিশ্বের রোল মডেল হয়ে এগিয়ে যাচ্ছে, ঠিক তেমনি নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে কক্সবাজার সদর-রামু উপজেলার প্রত্যেক ইউনিয়নের পাড়া মহাল্লায় নেতাকর্মী ও সাধারণ ভোটারদের সাথে গণসংযোগ করে ব্যস্ত সময় পার করছেন কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) থেকে আ’লীগের মনোনয়ন-প্রত্যাশী ছাত্রনেতা ইশতিয়াক আহমেদ জয়।

আজ (২৬ শে অক্টোবর) জুমাবার তিনি এ আসনের রামুর খুনিয়াপালং ইউনিয়নের মাঙ্গালা পাড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে পবিত্র জুমার নামাজ শেষে মুসল্লীদের সাথে কুশল বিনিময় করেন।

এসময় সাধারণ জনগণের মাঝে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়।

কক্সবাজার সদর আসনকে উন্নয়নে দেশের এক সেরা মডেল আসন হিসেবে দেখতে চান পরিচ্ছন্ন এই ছাত্রনেতা সৎ ও নির্ভীক কন্ঠ ইশতিয়াক আহমেদ জয়।

কক্সবাজার সদর আসনের প্রতি‌টি সভা সেমিনারে দীর্ঘদিন যাবৎ তাঁর বক্তব্যে এ কথা দৃঢ় ক‌ন্ঠে বলে আসছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হা‌সিনা য‌দি কক্সবাজার সদর-৩ আসন থেকে তাকে ম‌নোনয়ন দেয় তবে নৌকার বিজয় উপহার দিতে পারবেন বলে দৃঢ়চিত্তে দাবি করেন তিনি।

সাংবা‌দিক‌দের সা‌থে মত বি‌নিময়কা‌লে আগামী একাদশ জাতীয় নির্বাচন’কে বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় হিসেবে বর্ণনা করে আওয়ামী লীগ থে‌কে ম‌নোনয়ন প্রত্যাশী তরুণ ছাত্রনেতা ইশতিয়াক আহমেদ জয়।

এ সময় তিনি বলেন, ‘এই নির্বাচন হবে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা থাকবে কি থাকবে না, বাংলাদেশ থেকে জঙ্গিবাদ সমূলে নির্মূল হবে কি হবে না, সেটি প্রমাণের নির্বাচন। এই নির্বাচন হবে একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীরা আর কোনো দিন মাথা উচুঁ করে দাঁড়াতে পারবে না, সেটি নিশ্চিত করার নির্বাচন।’

সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ তথা নৌকার বিজয় নিশ্চিত করার কোন বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তাই আগামী সংসদ নির্বাচনে দলের প্রার্থী মনোনয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিচার-বিশ্লেষণ করে এগোচ্ছেন বলে একটি সুত্র নিশ্চিত করেন ।

জয় বলেন, ‘কে ভালো কাজ করেছে এবং কে খারাপ কাজ করেছে এই আমলনামা জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আছে। নেত্রী বলেছেন, আগামী নির্বাচনে সেই নেতাকে তিনি মনোনয়ন দেবেন, যিনি জনগণের কাছে সবচেয়ে গ্রহণযোগ্য।

নেত্রী যেমন জানেন তেমনি এলাকাবাসীও তাদের স্থানীয় নেতা ও প্রতিনিধিদের বিষয়ে জানেন এমনটি বিষয় উপস্থাপন করে জনগণের উদ্দ্যে‌শে তিনি বলেন, ‘আপনারা এখানে যে ইতিবাচক পরিবর্তন আশা করছেন, সেই পরিবর্তনের হাতিয়ার আপনাদের কাছে আর সেটা হল ভোট। আপনারা যদি পরিবর্তন চান, আমি সেই পরিবর্তনের হাতিয়ার হিসেবে নিজেকে তৈরি করেছি।’

আপনাদের আশীর্বাদ নিয়ে শেখ হাসিনাকে এই আসনের বিজয় উপহার দিতে চাই।’

‘বঙ্গবন্ধু এই দেশের স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন, আর তারই সু‌যোগ্য কন্যা জন‌নেত্রী শেখ হাসিনা এই দেশকে অর্থনৈতিক মুক্তি দেয়ার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।’

ইশতিয়াক আহমেদ জয় বলেন, ‘ইতিমধ্যে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। যে বিশ্বব্যাংক এক সময় পদ্মা সেতুর জন্য ঋণ দিতে চায়নি, সেই বিশ্বব্যাংক বলছে বাংলাদেশের এই উন্নতি গোটা বিশ্বের জন্য রোল মডেল।’

বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল হোক এটা যেমন চান, তেমনি কক্সবাজার-৩ আসন এই দেশের রোল মডেল হোক এটাও এলাকার মানুষ চায় বলে মনে করি আমি ।

জয় বলেন, ‘আমি চাই কক্সবাজার-৩ আসনের উন্নয়ন, জনগণ যেন জনপ্রতিনিধির কাছে সর্বোচ্চ সম্মান পায়।’

এলাকাবাসীর উদ্দ্যে‌শে কক্সবাজার সদর-৩ আসনের মনোনয়ন-প্রত্যাশী ইশতিয়াক আহমেদ জয় বলেন, ‘আশা করি আপনারা এমন প্রতিনিধি বেছে নেবেন যার মধ্যে কোনো লোভ-লালসা থাকবে না। যিনি আপনাদের সত্যিকার অর্থে অনন্য একটি মর্যাদায় নিয়ে যেতে পারবেন। এই আসনের মানুষ যেন সর্বোচ্চ মর্যাদা পায়, তারা যেন জনপ্রতিনিধিদের কাছে গিয়ে অসম্মানিত না হয়।’

বাংলাদেশকে দারিদ্রমুক্ত করা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নীতি- এ কথা উল্লেখ করে তি‌নি বলেন, সেই নীতি যদি বাস্তবায়ন না হয়, তাহলে তো আমি বলব, যারা এর বাইরে কাজ করছে, তারা বাংলাদেশের বিরুদ্ধে কাজ করছেন, আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে কাজ করছেন। তারা আওয়ামী লীগের শত্রু, তাদের বয়কট করতে হবে।’

বিশেষ সুত্রে জানা যায়, আগামীতে মনোনয়ন প্রত্যাশী সকল নেতানেত্রীর আমলনামা সরকার প্রধানের কাছে জমা আছে। অনেকে দলীয় সভানেত্রীর সাথে সৌজন্য সাক্ষাত ও করছেন। সেক্ষেত্রে ইশতিয়াক আহমেদ জয় ও দ্রুত নেত্রীর সাক্ষাত পেতে পারেন।

দেশের উন্নয়ন যেটুকু বাকি আছে, সেটি শেষ করতে আওয়ামী লীগ যেন আবার ক্ষমতায় আসতে পারে, সেজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে আহ্বান জানান সদর আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী জয়।

তিনি বলেন, ‘আমি বিভেদ চাই না। আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কথা বলি, শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়নের কথা বলি, জনগণের কাছে বিস্তারিত তুলে ধরতেছি।

এই আসনে অন্য মনোনয়ন প্রত্যাশীদের উদ্দ্যেশে তিনি বলেন, ‘আমরা যারা আওয়ামী লীগের মনোনয়নের জন্য কাজ করছি, যদি আমরা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করি, আওয়ামী লীগের হাত শক্তিশালী হবে, শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী হবে।’

শেখ হাসিনা আবার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হবেন এটি আমরা বেশি করে চাই, যাতে উন্নয়নের ধারা কোনো ভাবে যেন ব্যাহত না হয়।’

এই উন্নয়নের ধারায় নিজেকে শামিল করতে চান কক্সবাজারের আলোচিত ছাত্রনেতা ইশতিয়াক আহমেদ জয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •