সংবাদদাতা:
বেশ কয়েক বছর পর মাত্র ২ সপ্তাহ আগে আন্তর্জাতিক ফুটবলের জন্য কক্সবাজার বীর শ্রেষ্ট রুহুল আমীন স্টেডিয়ামে মাঠকে উপযুক্ত করা হয়েছিল। কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে খেলার মাঠে ঘাষ লাগিয়ে সবুজায়ন করা হয়েছে। তারিধারাবাহিতকায় আসন্ন সাফ মহিলা আর্ন্তজাতিক ফুটবল ম্যাচ এবং আসন্ন জেলা ফুটবল লীগের আয়োজনের প্রস্তুতি চলছে এরি মধ্যে উন্নয়ন কনসার্টের আয়োজনের নামে ফুটবল মাঠকে নস্ট করার অপচেস্টা চলছে।
২৯ অক্টোবর কক্সবাজার বীর শ্রেষ্ট রুহুল আমীন স্টেডিয়ামে উন্নয়ন কনর্সাট হবে এবং সেখানে দেশের খ্যাতনামা শিল্পিরা গান পরিবেশন করবে। এর প্রস্তুতি হিসাবে বৃহস্পতিবার বিকালে মাঠে বিশাল মঞ্চ তৈরি এবং মাঠের মধ্যে বড় বড় গর্তকরে লাইন তৈরি করার জন্য সরাঞ্জাম নিয়ে আসলে ফুঁসে উঠে কক্সবাজারের সর্বস্তরের খেলোয়াড়রা। পরে তাৎক্ষনিক প্রতিবাদ ও মানববন্ধন করে খেলোয়াড়রা। কক্সবাজার বীর শ্রেষ্ট রুহুল আমীন স্টেডিয়ামের সামনে কয়েকশত খেলোয়াড় মানববন্ধন করে এর তীব্র প্রতিবাদ করে।
এতে অংশ নিয়ে জেলা ফুটবল খেলোয়াড় সমিতির সভাপতি ইকবাল মোঃ শামসুল হুদা টাইডেল বলেন,আমরা সরকারের উন্নয়নের প্রচারে অংশ নিতে চায় এবং উন্নয়ন কনসার্ট হওক সেটা আমরাও চাই কিন্তু কক্সবাজারে এ ধরনের বড় আয়োজনের জন্য অনেক উপযুক্ত জায়গা রয়েছে,যদি স্টেডিয়ামে উন্নয়ন কনসার্টের আয়োজন হয় তাহলে মাঠটি আর খেলার পরিবেশ থাকবে না। এতে কয়েক শত গর্ত হবে এবং মাঠে মানুষের ফেলা বাদামের খোসা,সিগারেট সহ অনেক উচ্ছিষ্ট ফেলে একেবারে ময়লা আবর্জনায় ভরে যাবে। মাঠে উন্নয়ন কনসার্ট আয়োজনের বিষয়ে অবগত এবং প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন চিঠি পায়নি জানিয়ে জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক অনুপ বড়–য়া অপু বলেন,অনেক কস্ট করে মাঠ কিছুটা উপযুক্ত করা হয়েছিল,এখানে যদি গর্ত করা হয় বা অন্যকোন কাজ হয় তাহলে সেটা খুব খারাপ কাজ হবে।শহরে বাহারছড়া গোল চত্তর মাঠ,দীর্ঘ বীচ,হাই স্কুল মাঠে,পৌর প্রিপ্যার‌্যাটরী স্কুলের মাঠ,জেলা পার্ক মাঠ আছে তবুও এখানে কনর্সাট করাটা সমুচিন হবে না। এ ব্যপারে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ মাহিদুর রহমান বলেন,আমিযতটুকু জানি প্রশাসনের পক্ষ থেকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে তবে খেলার স্বার্থে বিকল্প কিছু করা যায় কিনা সেটা জেলা প্রশাসক মহোদয়ের সাথে কথা বলে চেস্টা করা হবে। মানবন্ধন সভায় আরো অংশ নেন,জেলা খেলোয়াড় সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাসুদ আলম,জেলা ক্রীড়া সংস্থার ফুটবল সম্পাদক একেএম রাশেদ হোসাইন নান্নু,ক্রিকেট সম্পাদক অধ্যাপক জসিম উদ্দিন,ডিএসএ সদস্য খালেদ মোঃ আজম বিপ্লব,খেলোয়াড় সমিতির অর্থ সম্পাদক মোঃহানিফ,রেফারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাশেম কুতুবী,রোবার স্কাউট সম্পাদক আবদুল হামিদ,কৃতি ফুটবলার খালেদ হোসাইন,খালেদ মোশারফ,মোবারক হোসেন সহ কয়েক শত খেলোয়াড় স্টেডিয়াম মাঠে উন্নয়ন কনসার্ট না করার দাবী জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •