নিজস্ব প্রতিবেদক:
শহরে মহাজরপাড়া এলাকায় পাহাড় কেটে ভবন নির্মানের দায়ে অভিযান চালিয়েছে প্রশাসন। অভিযানে পাহাড়খেকো জাফর মিস্ত্রি পালিয়ে গেলেও ৩ জনকে আটকের পর বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেন আদালত। ইয়াবাকারবারী পারভেজ উদ্দিনের এই অবৈধ ভবন নির্মানের কাজ করে যাচ্ছেন তার শশুর জাফর মিত্রি। ২৩ অক্টোবর মঙ্গলবার দুপুর ২ টার দিকে সহকারী কমিশনার ভূমি নাজিম উদ্দিনের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়।

অভিযানে সাজাপ্রাপ্তরা হলেন, একই এলাকার জাফর মিত্রির ছেলে অস্ত্র-ডাকাতি মামলার আসামী মোঃ রাশেদুল ইসলামকে ৬ মাসের সাজা। একই এলাকার মৃত নুর আহমদের ছেলে মোহাম্মদ ওসমান গনি ২ দিনের সাজা। ভারুয়াখালী ইউনিয়নের আব্দুল আজিজের ছেলে মোঃ নাছিরকে ২ দিনের সাজা দেন আদালত।

জানা যায়, মহাজর পাড়া এলাকায় ঝুকিপূর্ণ ভাবে পাহাড় কেটে অবৈধ ভবন নির্মানের কাজ করছে চকরিয়া উপজেলার ইয়াবাকারবারী আবু মিয়ার ছেলে পারভেজ উদ্দিনের জায়গায়। পারভেজ উদ্দিনের শশুর জাফর মিত্রির নেতৃত্বে পাহাড় কেটে ২০/২৫ জন শ্রমিক দিয়ে প্রকাশ্যে নির্মান কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘাদন ধরে জাফর মিত্রির জামাই ইয়াবাকারবারী পারভেজ উদ্দিন গোপনে ইয়াবা ব্যবসা করে যাচ্ছে। তাই এভাবে প্রভাব কাটিয়ে অবৈধভাবে ভবন নির্মানের কাজ করে যাচ্ছে। শুধু তাই নয়, এই ইয়াবা ব্যবসায়ী পরভেজ উদ্দিন ৮ আগস্ট ফেনী জেলার সদর থানা এলাকার পশ্চিম লালপোলস্থ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৩৯১০০ পিচ ইয়াবাসহ ৬ জনকে আটক করে র‌্যাব। এনিয়ে ফেনী মডেল থানায় পরভেজ উদ্দিনকে আসামী করে একটি মামলা দায়েরও করা হয়।

সহকারী কমিশনার ভূমি নাজিম উদ্দিন জানান, সরকারি পাহাড়ে অবৈধভাবে পাহাড় কেটে ভবন নির্মানের দায়ে ৩ জনকে সাজা দেয়া হয়েছে। সেই সাথে নির্মানাধীন ভবনের কিছু অংশ ভেঙ্গে দেয়া হয়। অভিযানে পাহাড়খেকো জাফর মিত্রি পালিয়ে গেলেও আশপাশে সবাইকে সর্তক করা হয়েছে।

পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক জাহানারা ইয়াসমিন জানান, পাহাড় কেটে ভবন নির্মানের দায়ে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে ৩ জনের কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। পাহাড় কাটার সাথে জড়িতদের প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •