cbn  

ডেস্ক নিউজ:
রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীর নিচের একস্তর পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নিয়োগ, পদোন্নতি, বদলি ও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের ক্ষেত্রে পর্ষদের ক্ষমতা খর্ব করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ব্যাংক। তবে বেসরকারি ব্যাংকের ক্ষেত্রে পর্ষদের ওপরই ন্যস্ত থাকবে। আগে দেশের সব বাণিজ্যিক ব্যাংকের ক্ষেত্রেই এ নিয়ম চালু ছিল।

সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের গঠন ও দায় দায়িত্ব নিয়ে ২০১৩ সালের ২৭ অক্টোবর একটি সার্কুলার জারি করা হয়। ওই সার্কুলার অনুযায়ী, প্রধান নির্বাহীর নিচের অব্যবহৃত দুই স্তর পর্যন্ত কর্মকর্তাদের, যে নামেই অভিহিত হোক না কেন, নিয়োগ, পদোন্নতি, বদলি ও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের ক্ষমতা পর্ষদের ওপর ন্যস্ত করা হয়। দেশের সব ব্যাংকের জন্য এ নিয়ম প্রযোজ্য ছিল। এখন রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকের ক্ষেত্রে পর্ষদের এ ক্ষমতা খর্ব করলো বাংলাদেশ ব্যাংক।

এ বিষয়ে সার্কুলারে উল্লেখ করা হয়, রাষ্ট্র মালিকানাধীন ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীর নিচের অব্যবহৃত এক স্তর পর্যায়ের কর্মকর্তার, যে নামেই অভিহিত হোক না কেন প্রযোজ্য ক্ষেত্রে, নিয়োগ, পদোন্নতি, বদলি ও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের ক্ষেত্রে আগের বিধান প্রযোজ্য হবে না।

এ সংক্রান্ত পূর্বের সার্কুলারে বলা হয়, নিয়োগ, পদন্নোতি, বদলি, শৃঙ্খলা ও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা, প্রণোদনাসহ মানবসম্পদ উন্নয়ন ইত্যাদি সম্পর্কিত নীতি ও চাকরিবিধি পরিচালনা পর্ষদ কর্তৃক প্রণীত ও অনুমোদিত হতে হবে। তবে অনুমোদিত চাকরিবিধির আওতায় নিয়োগ, পদোন্নতি, বদলি ও শাস্তিমূলক ব্যবস্থাসহ যাবতীয় প্রশাসনিক কার্যক্রমে পর্ষদের চেয়ারম্যান বা পরিচালকরা কোনোভাবেই সংশ্লিষ্ট হতে পারবেন না। বিভিন্ন পর্যায়ের নিয়োগ বা পদোন্নতির জন্য নির্বাচিত কমিটিগুলোতে পরিচালনা পর্ষদের কোনো সদস্য অন্তর্ভুক্ত হতে পারবেন না। তবে প্রধান নির্বাহীর নিচের অব্যবহৃত দুই স্তর পর্যন্ত কর্মকর্তাদের, যে নামেই অভিহিত হোক না কেন, নিয়োগ, পদোন্নতি, বদলি ও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ পর্ষদের ওপর ন্যস্ত থাকবে। এ ধরনের নিয়োগ বা পদোন্নতির ক্ষেত্রে ব্যাংকের চাকরিবিধি তথা নিয়োগ ও পদোন্নতি সংক্রান্ত নীতিমালা যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •