cbn  

সিবিএন:
টেকনাফের হোয়াইক্যংয়ে চার দিন নিখোঁজ থাকা পর আবদুর রশিদ (৪০) নামে স্কুলের এক দপ্তরির বস্তাবন্দি গলা কাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে নাফনদীর তীর থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন হোয়াইক্যং পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বরত কর্মকর্তা (আইসি) সুব্রত রায়।

নিহত রশিদ টেকনাফের হোয়াইক্যং দৈংগাকাটা এলাকার জাফর আলমের ছেলে ও স্থানীয় আলহাজ্ব আলী আছিয়া স্কুলের দপ্তরি।

পুলিশ জানায়, বেলা সোয়া ১১টার দিকে নাফ নদীর তীরে মরদেহ ভাসার খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল ঊনছিপ্রাং খালের স্লুইস গেইট এলাকা থেকে একটি বস্তা তুলে আনে। এসময় বস্তার ভেতরে রশিদের গলা কাটা মরদেহ পাওয়া যায়।

স্থানীয়দের দাবি, আব্দুর রশিদ সহজ-সরল ও বিশ্বস্ত লোক ছিলেন। তাই অনেক রোহিঙ্গা কার কাছে টাকা-পয়সা আমানত রেখেছিল। এসব কারণে তিনি নিখোঁজ ও খুন হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পরিবারের বরাত দিয়ে টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রনজিত কুমার বড়ুয়া বলেন, গত ১৪ অক্টোবর রাত থেকে আব্দুর রশিদ নিখোঁজ ছিলেন। নিখোঁজ হওয়ার পর পুলিশকে জানানো হলে তার খুঁজে বিভিন্ন স্থানে তল্লাশি চালানো হয়। তার মুঠোফোনটিও বন্ধ থাকা প্রযুক্তি ব্যবহার করেও তার অবস্থান নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে পুলিশ খবর পেয়ে দুপুরে মরদেহ উদ্ধার করে। সুরতহাল রিপোর্ট তৈরির পর মরদেহ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •