cbn  

সিবিএন
টেকনাফের জাদিমুরা শালবাগান রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে শিশুসহ একই পরিবারের তিন জন দগ্ধ হয়েছেন। মঙ্গলবার (১৬ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। শালবাগান ক্যাম্পের চেয়ারম্যান রমিদা বেগম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দগ্ধরা হলেন– মোহাম্মদ ইউনুছ (৩০), তার স্ত্রী ছেতারা বেগম (২২) ও তাদের এক বছরের ছেলে মোহাম্মদ ইয়াছিন। তারা ওই ক্যাম্পের ডি-২ ব্লক থাকেন। মিয়ানমারের মংডু নেংরাডং গ্রাম থেকে এসেছেন তারা। এদের মধ্যে ইয়াছিন ও তার মা ছেতারা বেগমের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

রোহিঙ্গারা জানান, মঙ্গলবার রাতে টেকনাফ শালবাগান রোহিঙ্গা শিবিরের ছেতারা বেগম তার ঝুপড়ি ঘরে রান্না করার সময় গ্যাস সিলিন্ডারের বিস্ফোরণ ঘটে। এতে প্রথমে তার শরীরে আগুন লেগে যায়। পরে একই কক্ষে থাকা স্বামী ও ছেলেও দগ্ধ হয়। পরে তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসে। আগুন নেভান এবং তাদের উদ্ধার করে দুজনকে উখিয়া কতুপালং হাসপাতালে ও অপরজনকে কক্সবাজারে পাঠানো হয়। মা-ছেলের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের হাত, পা ও পিঠ গুরুতর দগ্ধ হয়েছে।

টেকনাফের দক্ষিণ হ্নীলা নয়াপাড়া শালবাগান ২৭ নম্বর ক্যাম্পের ডি-১১ ব্লকের মাঝি নুরুল আলম বলেন, ‘ক্যাম্পের অন্যান্যের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়। তা না হলে বড় ধরণের বিপদ ঘটতে পারতো। ’

এ ব্যাপের শালবাগান ক্যাম্পের চেয়ারম্যান রমিদা বেগম বলেন, ‘রোহিঙ্গা শিবিরে হঠাৎ করে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একই পরিবারের তিন জন দগ্ধ হয়েছেন। তার মধ্যে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের উখিয়া ও কক্সবাজারে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।’

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রবিউল হাসান বলেন, ‘রোহিঙ্গা শিবিরে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনার খবর শুনেছি। বিষয়টি খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •