স্পোর্টস ডেস্ক:
ধুঁকতে থাকা অর্থনীতি, ইয়েমেনের সঙ্গে যুদ্ধ কিংবা সাংবাদিক জামাল খাশোগি ইস্যুকে এবার একপাশে সরিয়ে রাখুন। সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান এবার নতুন কিছুতে বুঁদ করে রাখবেন সবাইকে। শীঘ্রই তাকে দেখা যেতে পারে নতুন পরিচয়ে, ইউরোপিয়ান ফুটবলের জায়ান্ট ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের মালিক হিসেবে।

ব্রিটিশ গণমাধ্যমের খবর-এবার কাতার, সংযুক্ত আরব আমিরাতের মতো ফুটবলে বড় ধরণের বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে সৌদি আরবও। সালমান পরিবার নাকি ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কেনার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। দুই পক্ষের মধ্যে কথা চলছে।

এমন একটি ক্লাব কিনতে টাকার অংকটা কেমন হবে, আন্দাজ করাই যাচ্ছে। আমেরিকান মালিক গ্ল্যাজের পরিবারের কাছ থেকে এই ক্লাবটি কিনতে হলে ৪ বিলিয়ন ডলার খরচ করতে হবে সৌদি পরিবারকে।

পারস্য উপসাগরীয় দেশ কাতারের ব্যবসায়ী আল খেলাইফি ২০১২ সালে কেনেন ফরাসি ক্লাব প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি)। আমিরাতের বিলিয়নার শেখ মনসুর বিন জায়েদ ম্যানচেস্টারের আরেক বড় দল ম্যানচেস্টার সিটি কেনেন ২০০৮ সালে।

বিনিয়োগ বৃথা যায়নি ম্যানচেস্টার সিটির মালিকের। ২০০৮ সালে তিনি যে ক্লাবটি কেনেন ২১০ মিলিয়ন পাউন্ডে। ফোর্বসের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১৮ সালে এসে সেই ক্লাবটির দাম এখন ২ বিলিয়ন পাউন্ডের বেশি।

এদিকে, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের দীর্ঘমেয়াদী সম্পর্ক আছে রিয়াদের সঙ্গে। গত বছর ফুটবলের উন্নতির জন্য সৌদি আরবের জেনারেল স্পোর্টস কর্তৃপক্ষের সঙ্গে একটি চুক্তিও স্বাক্ষর করে তারা।

সম্পর্কের এই সূত্র ধরেই কি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডও সৌদি পরিবারের হাতেই যাচ্ছে? সম্ভবত। আগামী সপ্তাহেই ক্লাবটির সহ-চেয়ারম্যান আভ্রাম গ্লাজেরের সৌদি সফরে যাওয়ার কথা। ব্রিটিশ গণমাধ্যমের দাবি, ক্লাব কেনাবেচার বিষয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা হবে এই সফরে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •