এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া:

আর্ন্তজাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস-২০১৮ উপলক্ষে শনিবার ১৩ অক্টোবর সকালে চকরিয়া উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সচেতনতামুলক র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রানালয়ের সহযোগিতায় ঘুর্ণিঝড় প্রস্ততি কর্মসুচি (সিসিপি) চকরিয়া উপজেলা কমিটির আয়োজনে অনুষ্ঠিত র‌্যালীটি উপজেলা পরিষদের প্রধান সড়ক প্রদিক্ষন শেষে উপজেলা পরিষদের সম্মেলনকক্ষে আলোচনা সভায় মিলিত হয়।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরউদ্দিন মুহাম্মদ শিবলী নোমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চকরিয়া উপজেলা কর্মকর্তা মুনীর চৌধুরী, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো.জোবায়ের হাসান, চকরিয়া থানার ওসি তদন্ত আতিক উল্লাহ, এসআই আবদুল বাতেন, উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা মো.মহিউদ্দিন। এছাড়াও অনুষ্ঠিত র‌্যালী এবং আলোচনা সভায় সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, ঘুর্ণিঝড় প্রস্ততি কর্মসুচি (সিসিপি) চকরিয়া উপজেলার সকল ইউনিয়ন কমিটির সদস্য ও সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ জাফর আলম বলেন, বাংলাদেশ একটি দুর্যোগ ঝুঁিকপুর্ণ দেশ। দেশের মধ্যে আমাদের কক্সবাজার জেলা বেশি ঝুকিঁপুণ অঞ্চল। এখানে নির্বিচারে পাহাড় নিধন, পাথর উত্তোলন ও প্যারাবন উজার হচ্ছে। জলবায়ুর বিরূপ প্রভাবের কারনে বর্তমানে উপকুলের বেশির ভাগ এলাকা দুর্যোগ ঝুঁিকতে। তিনি বলেন, বর্ষাকালে উপজেলার উপকুলীয় অঞ্চলে দুযোর্গের মাত্রা বেড়ে যায়। এতে জনগনের মাঝে আতঙ্ক উৎকন্ঠা বাড়ে। তাই সব ধরণের দুর্যোগ মুর্হুতে জনগনের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে জনগনের মাঝে সর্তকবার্তা জোরালো করতে হবে। দুর্যোগ মোকাবেলায় জনগনের মাঝে সচেতনতা বাড়াতে হবে। সেইজন্য ঘুর্ণিঝড় প্রস্ততি কর্মসুচি সিসিপি সদস্যদেরকে আরো বেশি দায়িত্বশীল ভাবে কাজ করতে হবে।

উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আলম আরও বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বে বর্তমান সরকার বাংলাদেশকে দুর্যোগঝুঁিক থেকে রক্ষা করতে কাজ করছেন। জলবায়ুর বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় উপকুলসহ দেশের প্রতিটি অঞ্চলে সবুজ বেস্টনী তৈরী করছেন। জনগনের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে উপকুলীয় অঞ্চলে হাজার কোটি টাকা বরাদ্দে টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণ করছেন। দুর্যোগ মুর্হুতে জনগনকে যাতে নিরাপদে সরিয়ে নিতে পারে সেইজন্য পর্যাপ্ত সাইক্লোন সেল্টার নির্মাণ করছেন।

সরকারের পাশাপাশি দুর্যোগ মুর্হুতে ঝুঁিক এড়াতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে সমাজের সকলস্তরের জনসাধারণকে এব্যাপারে সজাগ ভুমিকা পালন করতে হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •