নিজস্ব প্রতিবেদক:

কক্সবাজারের মাংস ব্যবসায়ী রাজা মিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজা প্রদানের প্রতিবাদ ও তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবীতে কক্সবাজারে মাংস ব্যবসায়ী সমিতির ডাকে কক্সবাজার শহরে গত তিনদিন মাংস বিক্রি বন্ধ ছিল। যার কারণে সাধারন ক্রেতাদের দূর্ভোগে পড়তে হয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে কক্সবাজার মাংস ব্যবসায়ী সমিতির সাথে কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমানের ফলপ্রসু আলোচনা এবং রাজামিয়াকে মুক্তির বিষয়ের তারই আশ্বাসের প্রেক্ষিতে ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এই বৈঠক অনুষ্টিত হয়। এসময় কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র হেলাল উদ্দিন কবির উপস্থিত ছিলেন। কক্সবাজার মাংস ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি নুরুল আলমের নেতৃত্বে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি নুরুল আলম, সাধারন সম্পাদক মামুনুর রশিদ, রুহুল কাদের, রফিক সওদাগর, আবছার সওদাগর, বদরুজ সওদাগর প্রমুখ।

জানা যায়, গত মঙ্গলবার রাতে কক্সবাজার শহরের ঘোনারপাড়ায় মাংস ব্যবসায়ী রাজামিয়ার বাড়ীতে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমান আদালত। সেখানে তার ফ্রিজে রক্ষিত মাংস অসুস্থ গরুর মাংস আখ্যা দিয়ে তাকে ৮ মাসের জেল ও পাঁচ লক্ষ টাকা জরিমানা করেন। মাংস ব্যবসায়ীরা দাবী করেন যে মাংসের কথা বলে রাজামিয়াকে সাজা দেয়া হয়েছে তার কোন পরিক্ষা-নীরিক্ষা করা হয়নি। কতিপয় চাঁদাবাজ যুবকের ভুল তথ্যের ভিত্তিতে এই সাজা দেয়া হয়েছে।

এরই প্রতিবাদে কক্সবাজার মাংস ব্যবসায়ী সমিতি ২৭ সেপ্টেম্বর মানববন্ধন, ৩০ সেপ্টেম্বর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন ও ১ অক্টোবর জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করে। তারপরেও বিষয়টির সুষ্ট সমাধান না হওয়ায় গত তিনদিন যাবৎ তারা কক্সবাজার শহরের মাংস বিক্রি বন্ধ রাখে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •