এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া :

চকরিয়া উপজেলার চারটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জেলা প্রশাসকের বিশেষ বরাদ্দের আওতায় ৩০ মেট্রিন খাদ্য সষ্যের বিপরীতে মিড ডে মিল কর্মসুচি উদ্বোধন করেছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম। গতকাল বুধবার (৩ অক্টোবর) সকালে ও দুপুরে তিনি উপজেলার সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের উত্তর সুরাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কাকারা ইউনিয়নের বার আউলিয়ানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাকের মোহাম্মদ চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও সর্বশেষ চকরিয়া পৌরসভার চিরিঙ্গা সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়ে ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন স্কুলব্যাগ ও টিফিন বক্স বিতরণ করেছেন। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আনোয়ারুল কাদের জানিয়েছেন, মিড ডে মিল প্রকল্পের আওতায় গতকাল চারটি বিদ্যালয়ে ৯৬০ জন শিক্ষার্থীর হাতে টিফিন বক্স ও ৮২০জন শিক্ষার্থীর হাতে স্কুলব্যাগ বিতরণ করা হয়েছে। এ প্রকল্পের অধীনে উপজেলার ১৫টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২ হাজার ৩৩৫জন শিক্ষার্থীর মাঝে টিফিন বক্সা ও ২হাজার ৫৩০ শিক্ষার্থীর মাঝে স্কুলব্যাগ বিতরণ করা হবে পর্যায়ক্রমে।

অনুষ্ঠিত চারটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মিড ডে মিল কর্মসুচি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুউদ্দিন মুহাম্মদ শিবলী নোমান। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিতরণ অনুষ্ঠানের অভিভাবক সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ জাফর আলম। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চকরিয়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আনোয়ারুল কাদের।

সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের উত্তর সুরাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মিড ডে মিল কর্মসুচি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আজিমুল হক আজিম, অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ ওয়ারেস।

চিরিঙ্গা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিশেষ অতিথি ছিলেন চকরিয়া পৌরসভার কাউন্সিলর ও বিদ্যালয় কমিটির সাবেক সভাপতি মুজিবুল হক হক, বর্তমান কমিটির নতুন সভাপতি আবু ছাদেক, অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন প্রধান শিক্ষক মো: তসলিম উদ্দিন। অপরদিকে বার আউলিয়ানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলাম, সাকের মোহাম্মদ চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সঞ্চালনা করেন প্রধান শিক্ষক ফরিদুল আলম। এছাড়াও অনুষ্ঠানে চারটি বিদ্যালয়ে সকল শিক্ষক, পরিচালনা কমিটির সকল নেতৃবৃন্দ, ডুলাহাজারা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুল বারেক টিপু,অভিভাবক মহল ও শিক্ষার্থীসহ সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।

অভিভাবক সমাবেশে প্রধান অতিথি চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আলম বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বে বর্তমান সরকার নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদেরকে লেখাপড়ার মাধ্যমে আদর্শবান সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে পরিকল্পিতভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনার আমলে বাংলাদেশে শিক্ষাখাতে যেধরণের অগ্রগতি হয়েছে, অতীতে অন্য কোন সরকারের আমলে সিকিপরিমাণও হয়নি। বর্তমান সরকার একটি শিক্ষাবান্ধব সরকার। সরকার প্রধানের ঘোষনা আগামী ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে নিরক্ষতার অভিশাপমুক্ত করা হবে। সেই লক্ষ্যে সরকার কাজ করছেন।

উপজেলা চেয়ারম্যান আরও বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে দেশে শিক্ষার হার অনেক বেড়েছে। বিদ্যালয় গুলোতে এখন ঝড়েপড়া বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। কারণ সকল শিক্ষার্থীর জন্য বিনাবেতনে লেখাপড়া নিশ্চিত করছেন সরকার। গরীব পরিবারের শিক্ষার্থীকে উপবৃত্তি দিচ্ছেন। দুপুরে যাতে বিদ্যালয়ে না খেয়ে থাকতে না হয় সেইজন্য মিড ডে মিল প্রকল্প চালু করেছেন। দেশের প্রতিটি জনপদে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোকে অবকাঠামোগত উন্নয়নে ঢেলে সাজাচ্ছেন। লাখ লাখ শিক্ষককে সরকারি চাকুরীও নিশ্চয়তা দিয়েছেন সরকার প্রধান শেখ হাসিনা। নিবন্ধনবিহীন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলোকে সরকারিকরণ করেছেন।

সমাবেশে উপজেলা চেয়ারম্যান অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, বর্তমান সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে হলে আগামী নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে সবাইকে ভোট দিতে হবে। দেশের উন্নয়নে, শিক্ষার্থীদের বিনাবেতনে লেখাপড়া নিশ্চিত করতে আওয়ামীলীগকে রাষ্ট্র ক্ষমতায় আনতে হবে। জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী করতে হবে। সরকারের সাফল্য ও অগ্রযাতার সাথে চকরিয়া-পেকুয়াবাসিকে এগিয়ে যেতে হবে। সেইজন্য এখন থেকে সকলকে জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের জন্য কাজ করতেহ হগবে। ##

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •