মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :


আমি একটু তোমার সাথে কোলাকুলি করতে চাই। আমার আগ্রহের উত্তরে সে বলল, আমার সাথে কোলাকুলি করতে হলে আপনার একটা মই আনতে হবে। মইটা আমার বুকে লাগিয়ে দিয়ে, তারপর আপনি মই এর উপর উঠে আমার সাথে কোলাকুলি করতে পারবেন। আমি বললাম, এখানে আমি হঠাৎ মই কোথায় পাবো? তখন সে বললো, মই ছাড়া আপনি আমার সাথে কুলাকুলি করতে চাইলে, আমার গলার পরিবর্তে আমার কোমরে আপনার গলা লাগিয়ে দিয়ে আমার সাথে কুলাকুলি করার সখ আপনাকে মেটাতে হবে।
৮ ফুট ৫ ইন্ঞ্চি লম্বা দীর্ঘদেহী মোহাম্মদ জিন্নাত আলীর সাথে আমি কোলাকুলি করতে চাইলে সে নিঃসংকোচে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। আমার নিজের শারীরিক উচ্চতা মাত্র সাড়ে ৫ ফুট হওয়াতে জিন্নাত আলী অকপটে আমাকে তার সাথে কুলাকুলি করার জন্য মই আনতে বলেন।অনেকের মতে, জিন্নাত আলী সার্ক অন্ঞ্চলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দীর্ঘদেহী মানুষ। জিন্নাত আলী ছাড়াও পাকিস্তানে আরো কয়েক ইন্ঞ্চি লম্বা একজন মানুষ রয়েছে বলে একটি সুত্র জানিয়েছে। ২ অক্টোবর মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে জিন্নাত আলী’র সাথে দেখা। তাকে কৌতুহলী লোকজন ঘিরে ধরেছে। সবাই তার পাশে গিয়ে ছবি উঠাচ্ছে, আর তার আপাদমস্তক দেখছে, বিভিন্ন প্রশ্ন করছে। সময়টা আমার পেশার জন্য খুবই ব্যস্ততম হলেও আমিও অন্যান্যদের মতো জিন্নাত আলী’র পাশে গিয়ে ছবি উঠানোর লোভ সামলাতে পারিনি। মোহাম্মদ জিন্নাত আলী’র বাড়ি কক্সবাজারের রামু উপজেলার গর্জনিয়া ইউনিয়নের বড়বিল গ্রামে। জিন্নাত আলী বলল, তার জম্ম ১৯৯৮ সালে। সে হিসাবে তার বয়স ২১ বছরের একটু বেশী। নিম্মবিত্ত পরিবার। তার পিতার নাম আমির হামজা, মাতার নাম শাহপুরী বেগম। জিন্নাত আলীরা ৩ ভাই ১ বোন। ভাই বোনদের মধ্যে জিন্নাত আলী তৃতীয়। জিন্নাত আলী’র পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের কারো দেহ সাড়ে ৫ ফুটের বেশী নয়। কিন্তু জিন্নাত আলী’র দেহ এত বেশী দীর্ঘ কেন ? এ প্রশ্নের উত্তরে জিন্নাত আলী’র সাথে থাকা তার বড় ভাই মোহাম্মাদ ইলিয়াছ বিশেষজ্ঞ চিকৎসকদের উদ্ধৃতি দিয়ে জানান, হরমোন ও থায়রয়েড সমস্যার কারণে জিন্নাত আলী’র শরীর অস্বাভাবিকভাবে লম্বা হয়ে গেছে। বিশিষ্ট সমাজসেবক ও তরুন রাজনীতিবিদ শহরের উত্তর নুনিয়াছটার বাসিন্দা দীর্ঘদেহী হোসাইন ইসলাম বাহাদুর লম্বায় ৬ ফুট ১ ইন্ঞ্চি। বাহাদুরের পিতা মনির আহমদ সহ তার পরিবারের সকলেই একটু দীর্ঘদেহী। তাই বংশগতভাবে বাহদুরের শারিরীক উচ্চতা একটু বেশী হলেও তার কিংবা তার পরিবারের কোন সদস্যের শরীরে হরমোন অথবা এজাতীয় অন্য কোন জটিলতা নেই। বাহাদুরের পরিবারের দীর্ঘদেহী সকলের স্বাভাবিক জীবন যাত্রায় কোন সমস্যা হয়না বলে বাহাদুর জানিয়েছে। কিন্তু জিন্নাত আলী’র হরমোন সমস্যার কারণে সে বিভিন্ন শারীরিক জটিলতায় ভুগছে। হরমোন ও থায়রয়েড চিকিৎসায় জিন্নাত আলীর কমপক্ষে ১২ লক্ষ টাকা ব্যয় হবে বলে তাকে তার বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন। হরমোন সমস্যার কারণে বিভিন্ন কঠিন রোগ ব্যাধী জিন্নাত আলী’র শরীরে বাসা বেঁধেছে। অতিরিক্ত লম্বা হওায়ার কারণে জিন্নাত আলী জনসমক্ষে আসলেই বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েন। লোকজন তার পিছনে পিছনে হাঁটতে থাকে, তার সাথে ছবি উঠানোর অনুরোধ করে ও বিভিন্ন প্রশ্ন করতে থাকে। বেশী লম্বা হওয়ায় ঘাড় বাঁকা করে থাকতে হয় বলে ছোট খাট যানবাহনে জিন্নাত চড়তে পারেনা। তার পা দুটো অস্বাভাবিকভাবে ফুলে যাওয়ায় গত ১১ সেপ্টেম্বর থেকে জিন্নাত আলী কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি আছেন। কিন্তু অর্থাভাবে তার চিকিৎসাসা খরচ ভালভাবে চালাতে পারছেনা। মঙ্গলবার শহরের কাচারী পাহাড় এলাকায় চিকিৎসা খরচের অর্থ যোগাড়ের জন্য হাসাপাতাল থেকে তার বড়ভাই সহ জিন্নাত আলী হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে বের হয়েছে বলে জানান। জিন্নাত আলীর পরিবার তার প্রয়োজনীয় চিকিৎসা খরচ চালাতে না পারায় সরকার, সহৃদয় ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের আর্থিক সহয়তা কামনা করেছেন। জিন্নাত আলীর বড় ভাই মোহাম্মদ ইলিয়াছের মোবাইল ফোন নং- ০১৮৪৯৩৬২৬৯০। সচেতন মহল দেশের স্বার্থে রেকর্ড পরিমাণ উচ্চতা সম্পন্ন দেহের অধিকারী মোহাম্মদ জিন্নাত আলীকে সুচিকিৎসা করে সুস্থভাবে বাঁচিয়ে রাখার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সহ সমাজের বিত্তবানদের প্রতি আবেদন জানিয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •